যৌন হেনস্থার অভিযোগ তুললেন রেখা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

রেখা মুখ খুললেই তা প্রবল সংবাদ হয়ে যায়।ক্যামেরার সামনে সামান্য নড়াচড়ায় অথবা কোনো বিষ্ফোরক মন্তব্য করে রেখা হঠাৎই উঠে আসেন সংবাদের শিরোনামে। ২৬ ফেব্রুয়ারী একটি বেসরকারী টেলিভিশন চ্যানেলের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে নিজের জীবনে ঘটে যাওয়া যৌন হেনস্থার কথা বলে বসেছেন রেখা। আর তাতেই উঠেছে আলোচনার ঝড়।

রেখা বলেছেন ১৬ বছর বয়সে তিনি  পুন্নাগাই-মান্নান নামে একটি ছবিতে অভিনয় করতে গিয়েছিলেন। পরিচালক ছিলেন প্রখ্যাত অভিনেতা ও পরিচালক কমল হাসান ও বালাচন্দ্র। ক্যামেরা রোল হবার পর তার অনুমতি ছাড়াই কমল হাসান তাকে ঘনিষ্ট ভাবে চুমু খেতে শুরু করেন।ঘটনার আকস্মিকতায় হতবাক হয়ে যান রেখা।

রূপোলি পর্দায় তখন সবে পা রাখতে শুরু করেছেন তিনি। সিনেমার রসায়ানের নামে তাঁর অনুমতি নেওয়া প্রয়োজন, এই কথাটাই মনে করেননি কেউ সেদিন। ওই দৃশ্যের শ্যুট হওয়ার পর লজ্জা পেয়েছিলেন রেখা। পর্দায় মেয়ের চুম্বন দৃশ্য দেখে বাবা কী মনে করবেন, তা ভেবেই মানসিকভাবে বিধ্বস্ত হয়ে যান তিনি।

রেখার ভাষ্য অনুযায়ী, ওই ঘটনার পর একবারের জন্যও কমল হাসান কিংবা পরিচালক বালাচন্দ্র তাঁর কাছে ক্ষমা চাননি। চাওয়ার চেষ্টাও করেননি।  পুন্নাগাই মান্নান ছবিটি ওই সময় সুপারহিট হওয়ায়, রেখার কথার কেউ গুরুত্বও দেননি বলে দাবি করেন তিনি।

রেখার এই অভিযোগ সামনে আসার পর থেকেই শুরু হয়েছে শোরগোল। রেখাকে না জানিয়ে চুম্বন করার অভিযোগে কমল হাসানকে এবার প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে বলেও দাবি জানাতে শুরু করেছেন রেখাভক্তরা। অবশ্য বিষয়টি নিয়ে এখন পরর্ন্ত কমল হাসান মুখ খোলেননি।

এই সেদিন মুম্বাইয়ের বিখ্যাত ফটোগ্রাফার ডাব্বু রত্নানীর ক্যালেন্ডার প্রকাশনার অনুষ্ঠানে হাজির হয়েছিলেন তিনি। অন্য ফটোগ্রাফারদের অনুরোধ রাখতে মঞ্চে হেঁটে ছবি তুলতে দিচ্ছিলেন। হঠাৎ চোখে পড়ে যায় দেয়ালে টানানো অমিতাভ বচ্চনের ছবির দিকে। চমকে গিয়ে প্রায় ছিটকে সেখান থেকে সরে আসেন রেখা।মুখ ফসকে বলে বসেন, ‘ইয়ে ডেঞ্জার জোন হ্যায়’। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রেখার এই ভিডিয়ো পোস্ট হতেই তা ভাইরাল হয়ে যায়। তবে এই প্রথম নয়, গতবছরও ডাব্বু রত্নানির ক্যালেন্ডার লঞ্চে হাজির হয়ে অমিতাভের ছবি দেখে একপ্রকার আঁতকে ওঠেছিলেন রেখা।

বিনোদন ডেস্ক
তথ্যসূত্রঃ ২৪ ঘন্টা
ছবিঃ গুগল

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]