রকমারী ইয়াম্মী…

অসিত কর্মকার সুজন

শীত ফুরালো। কিন্তু রকমারী খাবারের আবেদন শীতের পরেও রয়ে যায়। এবার প্রাণের বাংলার হেঁশেলে কমলার লাড্ডু তেমনি এক আইটেম। সঙ্গে আছে ডিমের গরমা গরম বিরিয়ানি আরপুই পুলির রেসিপি। শীত শেষে এসব মজাদার খাবার কিন্তু খাদ্যরসিকদের জন্য হতে পারে রসনাবিলাসের মহা আয়োজন। দেখুন রেসিপিগুলো তৈরি করে চেটেপুটে সাবার করা যায় কত দ্রুত।আপনাদের জন্য এই রেসেপিগুলো পাঠিয়েছেন রন্ধনশিল্পী অসিত কর্মকার সুজন।

কমলার লাড্ডু

কমলা লাড্ডু

উপকরন :

ছানা দেড় কাপ , অরেঞ্জ জুস আধা কাপ , অরেঞ্জ কালার সামান্য , অরেঞ্জ জেস্ট আধা চা চামচ , অরেঞ্জ জেলী ২ টেবিল চামচ ( পুরের জন্য ), মাওয়া আধা কাপ , কনডেন্স মিল্ক আধা কাপ, গুড়ো দুধ আধা কাপ, কাজু ও পেস্তা পেস্ট আধা কাপ , এলাচ গুড়ো আধা চা চামচ , চিনি স্বাদমতো , ঘি ১/৪ কাপ ।

প্রণালী:

প্যানে ঘি দিয়ে দিন । সামান্য গরম হয়ে এলে একে একে সব উপকরণ দিয়ে নাড়তে থাকুন । মিশ্রণটি আঠালো হয়ে এলে নামিয়ে একটু ঠান্ডা করে নিন । এবার হাতে সামান্য ঘি মেখে পরিমাণমতো মিশ্রণ নিয়ে অল্প পরিমাণ অরেঞ্জ জেলী পুর হিসেবে দিয়ে লাড্ডুর আকারে গড়ে রাখুন । এবার ডিশে পছন্দমতো সাজিয়ে পরিবেশন করুন ।

ডিমের বিরিয়ানি

ডিমের বিরিয়ানি

উপকরণ :

বাসমতি চাল ২ কাপ , সেদ্ধ ডিম ১০ টি, বিরিয়ানি মসলা ১ প্যাকেট , মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ ,পেঁয়াজ কুঁচি ১ কাপ,আদা বাটা ১ টেবিল চামচ , রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ , টকদই ১ কাপ ,শাহজিরা ১ চা চামচ ,কাজু বাদাম ১/৪ কাপ , পুদিনা ১/২ কাপ,পেঁয়াজ বেরেস্তা ১/২ কাপ ,ঘি ১ কাপ ,লবণ স্বাদমতো ,গরম পানি পরিমান মতো , কয়লা ১ টুকরো ।

প্রণালী :

চাল আধা ঘন্টা ভিজিয়ে রেখে পানি ঝরিয়ে নিন ।এক চা চামচ বিরিয়ানি মসলা, এক চা চামচ মরিচ গুঁড়া ও স্বাদমতো লবণ দিয়ে ডিম মাখিয়ে অল্প তেলে হালকা করে ভেজে নিন। এবার প্যানে ঘি গরম করে শাহজিরা ফোঁড়ন দিয়ে একে একে সব মশলা বা ও অর্ধেক পুদিনা দিয়ে কষিয়ে নিন। মসলা থেকে তেল ছেড়ে আসলে পানি দিয়ে চাল দিন। আঁচ কমিয়ে ঢাকনা দিয়ে দিন।চাল ও পানি এক লেভেলে আসলে ডিম দিয়ে উপরে বেরেস্তা, বাকি পুদিনা ঘি দিয়ে মাঝে একটি বাটি বসিয়ে তাতে কয়লা গরম করে ঘি ঢেলে ১০-১৫ মিনিট ঢেকে দমে রাখুন ।

এবার ডিশে পছন্দমতো সাজিয়ে পরিবেশন করুন ।

পুঁই পুলি

উপকরণ:

পুঁই পুলি

(১) পুলির জন্যে :

পুঁই শাকের পাতা ২৫০ গ্রাম  ,আটা ২৫০ গ্রাম , লবণ ও তেল পরিমান মতো , কালো জিরা ১/২ চা চামচ ,  পানি ১ কাপ ।

(২) পুরের জন্যে :

পুঁই শাক কুঁচি ২৫০ গ্রাম, সয়া নাগেটস ২০০ গ্রাম , মাঝারি ২টি আলু স্বেদ্ধ , ২৫০ গ্রাম চিড়া , জিরা গুঁড়ো ১/২ চা চামচ , সয়া সস ১ টেবিল চামচ , কাঁচামরিচ কুঁচি ৩ চা-চামচ , ধনেপাতা কুঁচি ২ টেবিল চামচ ,  লবন পরিমান মতো , তেল ১/৪ কাপ  ।

প্রণালী:

প্রথমে গরম পানিতে সয়া নাগেটস ভিজিয়ে রাখুন  । নরম হলে ঠাণ্ডা পানিতে  ভিজিয়ে ভালো করে সয়া নাগেটস হাতে চিপে চিপে নিতে হবে । সয়া নাগেটস অল্প পানি দিয়ে ব্লেন্ডারে পেস্ট করে নিতে হবে । চিড়ার পানি  ছেঁকে নিতে হবে । এবার সয়া নাগেটস পেস্ট , পানি ছাঁকা চিড়া ও স্বেদ্ধ করা আলু এই তিনটি উপকরণ হাত দিয়ে মাখতে হবে । এবার প্যানে তেল দিয়ে একে একে   বাকী সব উপকরণ দিয়ে ভালো করে রান্না করুন ।

এবার পুলির জন্য পুঁইশাকের পাতা পেস্ট করে বাকি সব উপকরণ মিশিয়ে ভালো করে ময়ান দিয়ে ৩০ মিনিট রাখুন ।

এবার ময়ান দিয়ে রাখা ময়দার মিশ্রণ থেকে ছোট ছোট লুচি বানিয়ে নিয়ে তাতে আগে থেকে বানিয়ে রাখা  পুর দিয়ে পুলির আকারে গড়ে তেলে ভাজুন। ডিশে পুঁই পুলি সাজিয়ে সস দিয়ে পরিবেশন করুন ।