শামা রহমানের পরিবেশনায় প্রেমে বিরহে রবীন্দ্রনাথ

সুলতানা শিরীন সাজি : (অটোয়া থেকে)  অটোয়ার কার্লটন ইউনিভার্সিটির কৈলাস মিত্তাল থিয়েটার এ এক মনোজ্ঞ সংগীত সন্ধ্যা “প্রেমে বিরহে রবীন্দ্রনাথ” এর আয়োজন করা হয়েছিল অক্টোবর ২২’২০১৬’ শনিবার সন্ধ্যায়। অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করেছিলেন বাংলাদেশ থেকে আগত রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী শামা রহমান। বৃষ্টিস্নাত এক সন্ধ্যায় প্রকৃতি যেন মিলেমিশে  গিয়েছিল এই সন্ধ্যার আয়োজনের সঙ্গে। শামা রহমান মনের মাধুরী মিশিয়ে গাইলেন একে একে অনেক গান। “বিরহ মধুর হলো আজি” থেকে শুরু করে অনেক চেনা গান।

বাউল অঙ্গের গান ,”আমি কান পেতে রই”। নাটকের গান ” দিবস রজনী আমি যেন কার আশায় আশায় থাকি।

একটার পর একটা গান চলছে। কথা বলছেন আর গাইছেন শামা ” আমি হৃদয়ের কথা বলিতে ব্যাকুল,শুধাইল না কেহ “, “যে ছিল আমার স্বপনচারিণী” শামার খুব প্রিয় গান।canada333

“কৃষ্ণকলি আমি তারেই বলি” গাইতে গাইতে শেষ হলো প্রথম পর্ব।

বিরতিতে সিঙ্গাড়া আর চা সহযোগে  আড্ডার পর আবার শুরু হলো শামা রহমানের গান।

“ভালোবেসে সখী নিভৃতে যতনে”,”তোমার খোলা হাওয়া লাগিয়ে পালে”,” সকাতরে ঐ কাঁদিছে সকলে”, দুরে কোথাও দুরে দুরে”।

“সেই ভালো সেই ভালো, আমারে নাহয় না জানো” ,”মাঝে মাঝে তব দেখা পাই, চিরদিন কেন পাই না?”

“আজি বিজন ঘরে নিশীথ রাতে আসবে যদি শূন্য হাতে -” যখন গাইছিলেন ভীষন ভালো লাগছিল।

মাঝে মাঝেই ইউ টিউবে শুনি তার গাওয়া এই গান। আজ সামনে বসে শুনতে অসম্ভব ভালো লাগছিল। মনে হচ্ছিল বাইরের বৃষ্টিঝরা প্রকৃতির সঙ্গে মিলেমিশে একাকার হচ্ছিলো এই ভালোলাগার রেশ।

গান গাইতে গাইতে শামা রহমান বলছিলেন,রবীন্দ্রনাথের গান এত আপন লাগে ,মনেহয় এ যেন আমাদের নিজের কথা।আসলেই কথাটা ভীষন সত্যি।  তাঁর সব গানেই যেন আমরা আমাদের খুঁজে পাই। “জাগরণে যায় বিভাবরী-” যখন গাইছিলেন,পুরো হলের মানুষ যেনো ছোট্টবেলায় ফিরে গিয়েছিল। ঘাড় দুলিয়ে গান গাওয়া সেইসব দিন। আহা সুর ,গানের মূর্ছণায় ফিরে পেলাম সবাই সেইসব দিন।

canada444শেষ গানের রেশ চলে এলো। “আগুনের পরশমনি গাইতে গাইতে” শেষ হলো সুন্দর এই আয়োজন। তবলায় ছিলেন আমাদের অটোয়ার তবলাবাদক সাদী রোজারিও।  গীটার বাজালো টরন্টো থেকে আসা অপূর্ব। অদ্ভুত গীটার বাজালো ছোট্ট ছেলেটা। ও গানের সঙ্গে যেমন করে মাথা দুলিয়ে বাজাচ্ছিল। এই প্রজন্মের এই দূর প্রবাসে বেড়ে ওঠা অপূর্বকেও রবীন্দ্রনাথ ছুঁয়ে আছেন, ভাবতেই ভালো লাগলো।  মন্দিরা বাজালেন সৌরভ বড়ুয়া। শামা রহমান সব মিউজিশিয়ানদের প্রশংসা করলেন।

অনুষ্ঠানের আয়োজক এবং উপস্থাপক অটোয়ার জনপ্রিয় গানের শিল্পী আশেক বিশ্বাস শামা রহমানকে শুভেচ্ছা জানালেন। শুভেচ্ছা জানালেন এই আয়োজনের সাথে সম্পৃক্ত ফাহমিদা ওয়াহাব,শারমীন মল্লিক,নাঈমা হোসেন,মিশা হুদা এবং জিনাত জামান নেসার কে।

সুন্দর মঞ্চ সজ্জা করেছিলেন অটোয়া বসবাসরত গানের শিল্পী অং সুই থোয়াই এবং নার্গিস আখতার রুবী। অনুষ্ঠানে উপস্থিত দর্শক স্রোতাদের অনেক প্রশংসা করলেন শামা রহমান। অটোয়ার ছোট্ট পরিমন্ডলে যখনই কোন গানের আয়োজন হয়েছে বা হয়   গান প্রিয় দর্শক শ্রোতারা এখানে আসেন  এবং অনুষ্ঠানকে সমৃদ্ধ করেন।

যদিও ঠিক আগের দিনই ভজন সম্রাট এই একই হলে গান গেয়ে গিয়েছিলেন এবং মোহিত করে গিয়েছিলেন। কিন্তু শামা রহমানের অনুষ্ঠান এ গিয়ে মন ভরে গেলো। প্রিয় রবীঠাকুরের গানের পিপাসায় ঘুরে বেড়ান যারা, পাতাঝরার দিনগুলোতে মন যখন একটু করে বিষন্ন হতে শুরু করে তখন এই অনুষ্ঠানটা আমাদের জাগিয়ে দিয়ে গেলো।  প্রার্থণা করি সুস্থ থাকেন শামা রহমান। গান গাইতে থাকেন। আর আমরা  এই এত দূর থেকেও ,”কান পেতে রই”।