শেষ কদম ফুল

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পোস্টবক্স। ফেইসবুকের একটি জনপ্রিয় গ্রুপ। এবার প্রাণের বাংলার সঙ্গে তারা গাঁটছড়া বাঁধলেন। প্রাণের বাংলার নিয়মিত বিভাগের সঙ্গে এখন থাকছে  পোস্টবক্স-এর রকমারী বিভাগ। আপনারা লেখা পাঠান পোস্টবক্স-এ। ওখান থেকেই বাছাইকৃত লেখা নিয়েই হচ্ছে আমাদের এই আয়োজন। আপনারা আমাদের সঙ্গে আছেন। থাকুন পোস্টবক্স-এর সঙ্গেও।

নিঘাত কারিম

কর্কট কথা – ৬

নিঝুমের কথা-

আশা হারায় জীবনের সব প্রত্যাশা

মায়াবী লোবানের ঘ্রাণে

কেঁপে উঠে সহজিয়া ভাবনা

বিব্রত আলিঙ্গনের টানে ।

            আমি খুব আশাহত । জীবনে সব প্রত্যাশায় লোবানের ঘ্রাণ ভেসে আসছে । কেঁপে উঠছে সব সহজ ভাবনা । আলিঙ্গন করতে যাচ্ছি মৃত্যুকে ।অপারেশনের দুই সপ্তাহ পর খুব খুশী মনে ডাঃ এর কাছে গেলাম রঙিন চোখে রঙিন স্বপ্ন নিয়ে । বেঁচে থাকার আনন্দ নিয়ে । নতুন জন্ম পেলে মানসিক অবস্থা কেমন হয় সেই শুধু বলতে পারবে যে মৃত্যুর দুয়ার থেকে ফিরে এসেছে । জীবন অনেক কিছুই শিখালো । জীবনের হাত ধরে হাঁটতে গিয়ে নিজেকে  চিনলাম । চিনতে পারলাম সবাইকে । কত মায়া মমতা জড়ানো এই পৃথিবী ! কত ভালোবাসা চারিদিকে । আগে সব সময়ই মনে হতো , “ অনেক তো হলো বাঁচা ।এবার নয় অবসর নেই জীবন থেকে । “ কিন্তু মৃত্যু যখন  কড়া নাড়ছে তখন পৃথিবীকে যেনো অন্য রকম লাগছে । একটুও ইচ্ছে করছে না ছেড়ে যেতে । মায়া ভরা এই সম্পর্কগুলো আষ্টে পিষ্টে জড়িয়ে আছে ।বেঁচে থাকার প্রত্যাশার পারদ থেকে থেকে উর্ধ্বমুখী ।

          এই সপ্তাহটা ছিলো আমার জীবনের সবচেয়ে উদ্বিগ্ন সময় । শুক্রবার থেকে শুধু অপেক্ষা করেছি কবে বুধবার আসবে । ৭ই নভেম্বর হয়তো আমার জীবনের মোর ঘুরিয়ে দিবে । কি হবে ? ভবিষ্যত আমার জন্য কি নিয়ে বসে আছে ?

         আমার বর সারাদিন মন খারাপ করে আছে , ছেলেরা মুখ কালো করে বসে থাকে । ডাঃ কি বলবে ? মা বাঁচবে তো? গুগলের যুগ ১২ বৎসরের ছেলে ও গুগল করে জেনে ফেলেছে মায়ের কি হয়েছে । বড়ছেলে Clinical Psychology Student সারাক্ষণ মাকে বুঝাচ্ছে।  কিমোথেরাপির ডাক্তার , ডাঃ শেঠী বলেছে chemotherapy করতে হবে আর পাঁচ বছর ধরে হরমোন থেরাপি নিতে হবে। হরমোনের ঔষধ বা ইঞ্জেকশন নিতে হবে।  আমার দু‘চোখ ছলছল । চোখের দিকে তাকিয়ে ডাক্তার বুঝতে পারলো আমার মনের অবস্থা বললো , Don’t worry সব চলা যায়েগা তো ও ফের আয়েগা !” ইণ্ডিয়ান ডাক্তার । কথা শুনে আমি হেসে বাঁচিনা । আমার তো আবার সব কথাতেই হাসি । এ কথা শুনেও আমি সবাইকে জোক করে বলি আর হা হা করে হাসি । যদিও মনটা খুব খারাপ হয় । আমার প্রিয় চুল । জীবনে এই একটা জিনিসের প্রতিই আমার সবচেয়ে বেশী দুর্বলতা । এত সুন্দর লম্বা ঝলমলে  চুল আমার ! সব পড়ে যাবে ! চুলের দিকেই সব সময় আমার মনোযোগ ছিলো বেশী । আমার চুল – আমার অলঙ্কার । আমার চেহারা কেমন সেদিকে তাকানোর সময় আমার নাই । এখন চুল ছাড়া আমাকে দেখতে কেমন লাগবে ভাবলেই কান্না পাচ্ছে । চুপিচুপি একটা কথা বলি , “আমি কখনো আমার পড়ে যাওয়া চুল ফেলে দেই না । একটা  Container এ রেখে দেই । এত বছরে আমার এত এত চুল জমেছে “। ছেলে শুধু বলে , “ মা, এটা তোমার সঙ্গে একদম যায় না , তুমি এত স্মার্ট তারপরও কেন তুমি চুল রেখে দাও ? কখনো কেন ফেলে দাও না ?” আমি বলি , “না , ফেলবো না ,আমার সঙ্গে চুলগুলো আমার কবরে দিয়ে দিও ।”

       কেমো দেয়ার পর যখন সব চুল পড়ে যাবে । আমি টাক্কু মাথা হয়ে যাবো । তখন বর , ছেলেরা ঠিক করলো ওরাও টাক্কু হয়ে যাবে । যতদিন আমার চুল থাকবে না ততদিন ওদেরও চুল থাকবে না । ননদ বললো , ভাবী আমিও টাক্কু থাকবো । যে শুনে সেই টাক্কু হয়ে যাবে !কি funny! টাক্কু family. হাসতে হাসতে আমার চোখে জলের ধারা । অবাক হলাম ওদের ভালোবাসা দেখে ! মানুষ কেন আমায় এত ভালোবাসে ?

        এলো সেই কাঙ্ক্ষিত বুধবার । আমার দ্বিতীয়বার অপারেশন । Dr Jemmy Terry রুমে ঢুকেই বলল, “Hi Sweetie, you have a great news . তোমার কিমো লাগবে না । এই অপারেশনের পর তুমি পুরো সুস্থ একজন মানুষ হয়ে যাবে । তোমার আর কোন Cancer থাকবে না । শুধু তুমি কয়েকটি রেডিয়েশন নিবে । “নিজের অজান্তেই হাতটা আমার চুলে চলে গেল । চুলগুলোতে হাত বুলিয়ে হাসলাম , মনে মনে বললাম , Alhamdulillah আমার টাক্কু হতে হবে না । ভীষণ এক আনন্দে মন ভরে গেল ।

আমি  Cancer মুক্ত হবো। আমার চুল আগের মতোই থাকবে । রাহমানুর রাহীম আল্লাহ সুবহানাতায়ালার কাছে অসীম

কৃতজ্ঞতা ।

ছবি: গুগল

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]