শ্যারন টেট আবার আলোচনায়

‘ভ্যালি অফ দ্য ডলস’ ছবিটি করেই তিনি এক ঝটকায় উঠে এসেছিলেন বিশ্ব চলচ্চিত্রের পাদপ্রদীপের আলোয়। প্রথম ছবি অ্যান্থনী কুইনের বিপরীতে ‘আই অফ দ্য ডেভিল’। বিয়ে করেছিলেন আরেক প্রখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক রোমান পোলানস্কিকে। তারপর মাত্র ২৬ বছর বয়সে নিজের অ্যাপার্টমেন্টে আততায়ীদের গুলিতে খুন হয়ে যাওয়া। আলোচনাতেই রয়ে গেলেন শ্যারন মারিয়া টেট পোলানস্কি।

শ্যারন মারিয়া টেট ও পোলানস্কি

সম্প্রতি হলিউডের পর্দা কাঁপানো এই অভিনেত্রীর বিয়ের পোশাকটি ৫৬,২৫০ডলারে নিলামে বিক্রি হয়ে গেলো। আবারো মৃত্যুর ৪৯ বছর পর আলোচনায় উঠে এলেন শ্যারন টেট।

আইভরি সিল্ক দিয়ে তৈরী তাঁর বিয়ের পোশাকটি ১৯৬৮ সালে ছিলো ফ্যাশন তালিকার শীর্ষে। ওই বছরের ২০ জানুয়ারী টেট লন্ডনে বিয়ে করেছিলেন পোলানস্কিকে। তার আগে এই প্রতিভাবান পরিচালকের ছবিতে অভিনয় করা হয়ে গেছে। ‘ভ্যালি অফ দ্য ডলস’ ছবিটি টেটকে একেবারেই ভিন্ন এক উচ্চতায় নিয়ে যায়। এই ছবিতে অভিনয়ের জন্য তিনি গোল্ডেন গ্লোব নমিনেশনও পেয়েছিলেন।

বিয়ের পর মাত্র ১৮ মাস পৃথিবীতে নিঃশ্বাস নেয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন শ্যারন টেট। ১৯৬৯ সালের আগস্ট মাসের একদিন তাঁর বেভারলি হিলসের বাড়িতে ঢুকে পড়ে আমেরিকার কুখ্যাত মাফিয়া গ্যাং ‘ফ্যামেলি’-এর চার বন্দুকধারী। তাদের গুলিতে টেটসহ সেখানে উপস্থিত আরো ৪ বন্ধু নির্মম ভাবে খুন হন। মৃত্যুর সময় টেট ছিলেন গর্ভবতী।

আমেরিকার ডালাসে জন্ম নেয়া এই অভিনেত্রী ছিলেন তিন বোনের মধ্যে বড়। তাঁর হত্যাকারীদের সবাই পরে ধরা পড়ে এবং বিচারে তাদের সাজা হয়ে যায়। লস অ্যাঞ্জেলসে ‘জুলি‘জ অকশন’ নামে একটি নিলাম ঘরে গেল সপ্তাহে নিলামে ওঠে এই পোশাকটি। আগামী বছর শ্যারন টেটের মৃত্যুর ৫০ বছর অতিক্রান্ত হবে।

খুব অল্প বয়সে শ্যারন টেটের জীবনের উপর যবনিকা নেমে এলেও পৃথিবী তাকে ভোলেনি। নিলাম ঘরের কর্তারাও মনে করছেন এই পোশাকটি কিনতে ক্রেতাদের ভীড় সেটাই প্রমাণ করে। তবে যে ব্যক্তি টেটের পোশাক কিনেছেন তার নাম গোপন রেখেছেন তারা।

শ্যারন টেটের জীবন নিয়ে তাঁর ছোট বোন ডেবরা টেট একটি বই লিখেছেন। ‘শ্যারন টেট: রিকালেকশন’ নামে বইটি ২০১৪ সালে প্রকাশিত হয়। সম্প্রতি প্রখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক তারান্তিনো ‘ওয়ানস আপন এ টাইম ইন হলিউড’ নামে চৈলচ্চিত্র নির্মাণ করছেন। ছবিটিতে টেটের মৃত্যু বিষয়ে অনেক নতুন তথ্য থাকবে।

প্রাণের বাংলা ডেস্ক
তথ্যসূত্রঃ সিএসএন
ছবিঃ গুগল