সমুদ্রকথা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পোস্টবক্স। ফেইসবুকের একটি জনপ্রিয় গ্রুপ। এবার প্রাণের বাংলার সঙ্গে তারা গাঁটছড়া বাঁধলেন। প্রাণের বাংলার নিয়মিত বিভাগের সঙ্গে এখন থাকছে পোস্টবক্স-এর রকমারী বিভাগ। আপনারা লেখা পাঠান পোস্টবক্স-এ। ওখান থেকেই বাছাইকৃত লেখা নিয়েই হচ্ছে আমাদের এই আয়োজন। আপনারা আমাদের সঙ্গে আছেন। থাকুন পোস্টবক্স-এর সঙ্গেও।

সুজল আহমেদ তালুকদার

মনসমুদ্দুর.

অতিদূর সমুদ্রের’পর
হাল ভেঙ্গে যে নাবিক হারায়েছে দিশা
সবুজ ঘাসের দেশ যখন সে চোখে দেখে দারুচিনি-দ্বীপের ভিতর,
তেমনই দেখেছি তারে অন্ধকারে…

কবিতায় চোখ আটকে যায় বারবার। কবি জীবনের অনেকটাই কল্পনা করেছেন সমুদ্রকে নিয়ে। দূর সমুদ্দুরকে কবি কবিতায় প্রেয়সীর খুব কাছে নিয়ে এসেছেন।

আমার কাছে সবুজ ঘাস মানে অনেক কিছু, সবুজ বনের ধারেই আমার আনাগোনা, পথ হারিয়ে সবুজেই যে আমি পথ খুঁজে পাই। এইযে বিশাল সমুদ্দুর, আরও বিশাল তার নীল আকাশ, এখানে আমি ভেসে বেড়াই কোন এক সীগাল পাখির মতো, সময়ের কাটা যেনো স্থির এখানে, ভোরের আলো ফুটে আবার অস্ত যায় পশ্চিমে। পথে কত কত জাহাজের আনাগোনা, কিন্ত ভেপু বাজেনা, সবার চলার পথই যে আলাদা।

যেতে যেতে কত নতুন দেশ, নতুন জনপদে সে নাবিকের পদার্পণ।। কিন্ত শেষতক ওই সেই দারুচিনি দ্বীপের সবুজ ঘাসেই যে তার মন আটকে থাকে।।।
বাতাস তখনই হয় সুরভি যখন তা বন্ধ হয় ফুলের বুকে ||

অতঃপর আমি সেই,
সেই
মন মাঝিরে,  এই মন মাঝির কথাই যদি বলি, ভেবে পাইনা কোথায় কোথায় ছুটে চলে দুরন্ত মন আমার। আজও বিজ্ঞান কি জানে গতিময় পৃথিবীতে মনের গতি সবচেয়ে বেশী। মন এমন টাইম মেশিন’ অতীত বর্তমান, ভবিষ্যত সব জায়গায় যার অবাধ বিচরণ।

এই আমিইতো ছুটে চলেছি প্রশান্ত থেকে অতলান্তিক, ভারত মহাসাগর থেকে ভূমধ্যসাগর, তেমনি আমার মন ছুটে চলে তোমাদের কাছে, ঠিক যেনো কোনো আরবদেশের ফিনিক্স পাখির মতো, তোমাদের আমি ঠিকই দেখে নেই, অজান্তেই।

ছবি: লেখক

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]