সামাজিক বিভাজন নয়, সামাজিক বন্ধনই কাঙ্ক্ষিত

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ফেইসবুক।সবার কাছেই জনপ্রিয় এই শব্দটি। তাই প্রাণের বাংলায় আমরা সংযুক্ত করলাম ফেইসবুক কথা বিভাগটি।এখানে ফেইসবুকের আলোচিত এবং জনপ্রিয় লেখাগুলোই  আমরা পোস্ট করবো।আপনার ফেইসবুকে তেমনি কোন লেখা আপনার চোখে পড়লে আপনিও পাঠিয়ে দিতে পারেন আমাদের ই-মেইলে।

ড.সেলিম জাহান

করোনা সঙ্কটের সময়ে একটি নির্দেশিকা শব্দযুগল বলতে চেয়েছে এক কথা, কিন্তু বলে ফেলেছে অন্য কথা – নিজের অজান্তেই হয়তো। বলতে চেয়েছে ঘরের বাইরে নানান স্হানে দু’জন মানুষ একটি নিরাপদ দূরত্বে থাকবেন, মানে ন্যূনতম একটি শারীরিক দূরত্ব (Physical distancing) বজায় রাখবেন যাতে সংক্রমন না হয়। কিন্তু যেহেতু সামাজিক কর্মকান্ড ও সামাজিক মেলামেশার ক্ষেত্রে এই দূরত্বের কথা বলা হয়েছে, তাই অনেকটা বিভ্রমেই এর নাম দেয়া হয়েছে সামাজিক দূরত্ব (Social distancing) বিধান। এটা তাই পরিস্কার যে, নির্দেশিকা শব্দযুগল যা বলতে চেয়েছে , তা বোঝাতে পারে নি, আর যা বোঝাতে চেয়েছে, তা বলতে পারে নি।

বলা নিষ্প্রয়োজন যে , এ সঙ্কট থেকে উত্তরনের জন্যে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার অন্য কোন বিকল্প নেই। সংক্রমন রোধে এটা অত্যাবশ্যকীয়। কিন্তু তার মানে সামাজিক দূরত্ব নয়। আসলে আজকে সারা বিশ্বে যা ঘটছে, তা’তে সামাজিক দূরত্ব নয়, সামাজিক নৈকট্যই বেশী প্রয়োজন। সামাজিক বিভাজন নয়, সামাজিক বন্ধনই কাঙ্ক্ষিত। আমরা সবাই যে একই নৌকোয়।

সঙ্কটের যে বিশাল ব্যপ্তি, এবং যে গভীর স্বরূপ, তাতে আমাদের পরস্পরের খোঁজ নিতে হবে, পরস্পরকে সাহস যোগাতে হবে, পরস্পরকে সাবধান করতে হবে। এবং সে কাজটি করতে হবে নানান যোগাযোগের মাধ্যমে। আমরা ভাগ্যবান যে বর্তমান সময়ের তথ্য প্রযুক্তি শারীরিক উপস্হিতি ব্যতিরেকে আমাদের উপর্যুক্ত কাজগুলো করার সুযোগ করে দিয়েছে।

মনে রাখা দরকার সামাজিক নৈকট্য ও সামজিক বন্ধন ভিন্ন এ অভাবিত সঙ্কট আমরা উৎরাতে পারবো না। যুথবদ্ধতা ভিন্ন আমরা কিন্তু অসহায়। শুধু নিজেকে বাঁচিয়ে রাখায় প্রয়াস এ ক্ষেত্রে এক অপপ্রয়াস ভিন্ন আর কিছুই নয়, যা ব্যর্থ হতে বাধ্য।

সুতরাং সামাজিক দূরত্বের বদলে নানান যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে সামাজিক নৈকট্য গড়ে তুলতে হবে। কিন্তু বজায় রাখতে হবে শারীরিক দূরত্ব। নিজে বাঁচতে হবে এবং অন্যকেও বাঁচতে দিতে হবে। ওটা করতে গেলে একদিকে অত্যাবশ্যকীয় শারীরিক দূরত্ব অনুশাসন, অন্যদিকে প্রয়োজন সামাজিক নৈকট্য বিধান। শব্দ প্রয়োগে আমাদের ভ্রান্তি যাতে না ঘটে।

ছবি: গুগল

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]