স্বস্তিকার ব্রা’র স্ট্র্যাপ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্প্রতি ‘তাসের ঘর’-এর পোস্টারে ‘সুজাতা’র চরিত্রের স্বস্তিকার ব্রা-এর স্ট্র্যাপ দেখা গিয়েছে । ব্যস, তা নিয়েই নানা কথা এদিকে স্বস্তিকাও চুপচাপ থাকার পাত্রি নন। নানা কথা শুনে ফোঁস করে উঠলেন। ‘কেন উত্তর দেব না বলুন তো? সব সময় ছাড়বো কেন? সারাজীবন সব ছেড়েই রাখবো? কী হবে, বাজে কথা লিখবে লোকে, লিখুক। কিন্তু একটা সচেতনতা তো তৈরি করা উচিত। মানুষ জানে না মেয়েরা অন্তর্বাস পরে? না পরলে লোকেরাই রাস্তায় তাকাবে। তাই অন্তর্বাস পরতে হয়! সমাজ বদলাক না, লোকেরা মেয়েদের বুকের দিকে তাকানো বন্ধ করুক! মেয়েদেরও আর অন্তর্বাস পরতে হবে না!’

লুকিয়ে রেখে জামাকাপড় পরতে হবে শুধু মেয়েদের। আর ছেলেরা দারুণ শরীর তৈরি করে কখনও শুধু আন্ডারওয়্যার পরবে, কখনও কোমরের নীচে প্যান্ট পরবে, সে নিয়ে আদিখ্যেতা হবে— এই তথাকথিত ধারাকেই প্রশ্ন করেছেন স্বস্তিকা। একটা ছবির পোস্টারে মানুষ শুধু কালো অন্তর্বাস দেখলো? আর কিছু দর্শকদের চোখে পড়লো না! এই নিয়ে রীতিমতো অবাক স্বস্তিকা। শুধু অভিনয় নয়, অভিনেতা হিসেবে সামাজিক সমস্যা আর সংস্কারকে বার বার প্রশ্ন করে তাঁর দর্শকদের মধ্যে সচেতনতা তৈরি করতে চান তিনি।জোর করে তাঁর কণ্ঠরোধ করা যাবে না।তাই বলেন,‘মেয়েরা প্যান্টি পরে, পিরিয়ডের সময় প্যাড ব্যবহার করে, এগুলো অত্যন্ত স্বাভাবিক ঘটনা। তা নিয়ে আজও কেন লুকোছাপা? আমি অন্তর্বাস দেখাব, প্যাড লুকিয়ে কিনবো না বা কালো প্যাকেটে নেবো না। সরকার বলছে কনডোম ব্যবহার করুন, অথচ কনডোম কিনবে লোকে লুকিয়ে। কেন? এই উল্টো দিকের জীবন অভ্যেস করুক মানুষ! লুকিয়ে  ফিসফিস করে আমি কিছু করি না!’ এভাবেই বুঝিয়ে দিলেন স্বস্তিকা।

বিনোদন ডেস্ক

ছবি: গুগল

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]