সৎ মানুষের খোঁজে…

মামুন রিয়াজি

(ক্যালিফোর্নিয়া থেকে): হার্ডিঞ্জ সেতুর কোল ঘেঁষে রূপপুর গ্রাম, সেই রূপপুর গ্রামের নুরু মোল্লার ছেলে কিরণ মোল্লা। সে একজন খেটে খাওয়া পুরুষ, দিন যায় দিন আসে অন্য এক মালিকের কাছ থেকে নেওয়া ট্যাক্সি চালিয়ে জীবন যাপন করে ।একদিন হঠাৎ করে রূপপুর চৌরাস্তার মোড়ে বেশ ওজনের ঝোলাব্যাগ রাস্তার পাশে খুঁজে পায় কৌতূহলবশত ব্যাগটি খুলে দেখে প্রচুর টাকা তাৎক্ষণিক কিরণ মোল্লা খুঁজতে থাকে ব্যাগটির মালিক কে? বেশ কিছুক্ষণ পরে দেখে অপরপ্রান্ত থেকে একটি মানুষ এদিক ওদিক তাকাচ্ছে আর কিছু একটা যেন খুঁজছে তখন কিরণ মোল্লা দৌড়ে গিয়ে তাকে জিজ্ঞেস করে ভাই আপনি কি খুঁজছেন ? ভদ্রলোকটি বলে আমার একটা ব্যাগ হারিয়ে গেছে তখন কিরণ মোল্লা ঝোলাটি সামনে ধরে বলে এই ঝোলাটি কি আপনার? ভদ্রলোক  তখন কিরণ মোল্লা কে জড়িয়ে ধরে বলে জানেন ভাই এর মধ্যে আমার দুই লক্ষ ২৫ হাজার টাকা আছে । কিরণ মোল্লা হাসিমুখে তাকে জবাব দেয় আপনার সম্পূর্ণ টাকা ঝোলার মধ্যেই রয়েছে।দেখেন একটি টাকাও এদিক-ওদিক হয়নি , টাকা আপনার নিয়ে যান । ভদ্রলোকটি তখন খুশি হয়ে ৫ হাজার টাকা পুরস্কার হিসেবে কিরণ মোল্লাকে দেওয়ার জন্য অনেক সাধাসাধি করেন কিন্তু কিরন মোল্লা রিফিউজ করে দেয় ,ও বলে না এটা আপনার টাকা-আমার না ।পরের দিন সেই ভদ্রলোক আবার তার খোঁজ নিয়ে তার বাড়িতে আসে তাকে আবারো সাধে ৫০০০ টাকা দেবার জন্য। কিরণমোল্লা সেদিন ও সুন্দরভাবে তাকে রিফিউজ করে দেয়। এই সুন্দর সততার নিদর্শন সংবাদটি যেভাবেই হোক আমার দৃষ্টিগোচর হয় সেদিন থেকে আমি চিন্তা করেছিলাম ও খেটে খাওয়া ছেলে ওর নিজস্ব একটি ট্যাক্সি যদি হয় তাহলে তো ওর জীবনটা আরো সুন্দর হবে ।”এই তো আমরা” সংগঠনের পক্ষ থেকে আমি আমার প্রবাসী ভাই বোনদের সহযোগিতায়  ওর হাতে একটি সিএনজি তুলে দিতে পারলাম বলে আমি অত্যন্ত কৃতজ্ঞ আমার প্রবাসী ভাই ও বোনদের কাছে দোয়া করবেন মানুষ যেন সৎ ভাবে বাঁচতে পারে তাহলেই আল্লাহর  দয়া আমাদের প্রত্যেকের জীবনে আসবে ,সফলতা আসবে  এই বিজয় মাসের বিজয় হচ্ছে কিরণ মোল্লার ওর হাতে আমরা একটি সিএনজির চাবিটি দিতে পেরে আমরা শুকরিয়া আল্লাহর দরবারে করেছি।

ছবি: লেখক