হাইওয়ে টু হেভেন

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ফেইসবুক।সবার কাছেই জনপ্রিয় এই শব্দটি। তাই প্রাণের বাংলায় আমরা সংযুক্ত করলাম ফেইসবুক কথা বিভাগটি।এখানে ফেইসবুকের আলোচিত এবং জনপ্রিয় লেখাগুলোই  আমরা পোস্ট করবো।আপনার ফেইসবুকে তেমনি কোন লেখা আপনার চোখে পড়লে আপনিও পাঠিয়ে দিতে পারেন আমাদের ই-মেইলে।

জয়দীপ রায়

পথের একটা মজা আছে। পথ পড়ে থাকে রাস্তায়। নড়াচড়া করে না। ধরো, তুমি সাইকেল চালিয়ে যাচ্ছো, পথ হঠাৎ করে সন্ধ্যেবেলার ব্রীজে ওঠার মত করে উঁচু হয়ে যায় না, যে তুমি পড়ে গিয়ে সাইকেলসহ রাস্তায় গড়াগড়ি খাবে। তুমি যেতে যেতে সাইকেল বিক্রি করে মোটর সাইকেল ভাড়া নাও। আরও পথ আরও দ্রুত যাবে বলে। তেল ভরো। পথ পড়ে থাকে পথের মত শান্ত হয়ে। তুমি নিস্তব্ধতা খান খান করে ভেঙে বাইক বাজিয়ে চলে যাও জঙ্গলের পথে।
জঙ্গলের পথের আবার আলাদা মজা। জঙ্গলের পড়ে থাকা ছায়াঘেরা পথের বাঁকে ঠাকুরানি হিলস্ আসে। তুমি আবারও মন্দিরে পুজো না দিয়ে সশব্দে ধোঁয়া উড়িয়ে পার করে দাও কষ্টকর চড়াই। পথের চড়াই পথ আগেই দেখিয়ে দেয় ব’লে তুমি প্রস্তুত হয়ে থাকো। পথ ঘাট সেকশনে হলেও তোমাকে রেডি করে নেয় গ্রহণ করার জন্য। তুমিও মজা পেয়ে যাও গৃহীত হ’তে হ’তে। বাইকের গীয়ার কমিয়ে কমিয়ে জঙ্গল পাহাড় সবাইকে জানান দিতে দিতে চলে যাও, যে তুমি এসেছো।
পথের হাজার মজা আছে। পথের পাশেই শালুক ফুল ভর্তি পুকুর থাকে। তুমি বাইক তার পাড়ে রেখে ঘাসের উপর বসো। গাড়ির ইঞ্জিন ঠান্ডা হয়। তুমিও শান্ত হ’বার জন্য গা এলিয়ে দাও ঘাসের পরে। একটা বাচ্চামত আদিবাসী ছেলে জলে নেমে শালুক তুলতে আসে। তুমি তার বাড়ি জিজ্ঞেস করো। কোন ক্লাস জানতে চাও। ছেলেটি চলে যাবার আগে তোমার সামনে ঘাসের ওপর একটা ডাঁটাসহ শালুক রেখে যায়। একটাই। ছেলেটা চলে গেলে শান্ত তুমি ঠান্ডা গাড়িটার উপর আবার চড়ে বসো। স্টার্ট দাও। পথ আবার চলতে শুরু করে। তুমি বসে থাকো আর বসে বসে শুধু অ্যাকসিলারেটর ক্লাচ গীয়ার অ্যাডজাস্ট করে যাও।
তোমাকেও সবাই অ্যাডজাস্ট করে নেয়। তোমার বন্ধুরা অ্যাডজাস্ট করে নেয়, তোমার বাড়ি অ্যাডজাস্ট করে নেয়। এইমাত্র চলে যাওয়া কালোমত রোগা ছেলেটা, পুজো না দিয়ে আসা ঠাকুরানি দেবী, অসম্ভব সুন্দর বনপথ সবকিছু প্রতিমুহুর্তে তোমাকে মানিয়ে গুছিয়ে নেয়। কেউ তোমার হাততালি পাবার স্বভাবটাকে ওভারলুক করে, কেউ তোমার চাপা অথচ দীপ্ত অহংকারকে চোখ বন্ধ করে পাস করে যায়। তুমি যেরকমভাবে পার হয়ে যাও ভাঙাচোরা, ছাল উঠে যাওয়া রাস্তার অংশবিশেষ।
এইভাবে গৃহীত হ’তে হ’তে, অ্যাডজাস্টেড হ’তে হ’তে তোমার মনে পড়ে যায় ফুয়েল ট্যাঙ্কে তেল বিশেষ নেই আর, বাইক ভাড়াও বাকি পড়ে গেছে অনেক। তখন তোমার ফেরার ইচ্ছে জাগে।
ফেরার পথটাকে তুমি বলো, শব্দ করে তুমি সহজপথ ধরে বেরিয়েছিলে, ততটাই নি:শব্দে ফেরার পথ ধরো। কোনও একদিন শহরে ফিরে মোটর সাইকেল জমা দিয়ে দেনাদায়েক মিটিয়ে বাড়ি এসে আস্তে করে বলো, খেতে দাও, খিদে পেয়েছে।

ছবি: লেখকের ফেইসবুক থেকে

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]