হাবিজাবি ছ্যাঁচড়া

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

চন্দ্রবলী বিশ্বাস

আমাদের হেঁশেলে সহজ ভাবে যে কোনো সময় রান্না করা যায় এমন কিছু রান্নার রেসেপি নিয়মিত দিচ্ছেন অনেকেই। রান্নাগুলো আপনি যে কোন সময়ে চটজলদি করে ফেলতে পারেন। অবশ্যই খেতেও ভালো লাগবে। মুখের রুচিও বদল হবে।এবারে কলকাতা থেকে হাবিজাবি ছ্যাঁচড়া ররেসেপি পাঠিয়েছেন চন্দ্রাবলী বিশ্বাস।

 উপকরণ :

 রুই মাছের মাথা… বড় একটি

 পুঁই ডাঁটা… দুটি ( এক ফুট মতো লম্বা )

 আলু… মাঝারি দুটি

 রাঙাআলু…একটি

 বেগুন… একটি

 লাল কুমড়ো.. দশ টুকরো

 ঝিঙ্গে… বড় একটি

 পেঁয়াজ.. বড় দুটি

 রসুন… সাত কোয়া

 হলুদ গুঁড়ো… এক টেবিল চামচ ও এক চা চামচ

 শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো… এক টেবিল চামচ

কাঁচা লঙ্কা… চারটি আগা ফাটানো

 নুন, চিনি স্বাদ

মতো সর্ষের তেল… তিন ও এক টেবিল চামচ

গোটা শুকনো লঙ্কা…দুটি

পাঁচ ফোড়ন.. এক চামচ

 প্রণালী:

মাছের মাথা ভালো করে ধুয়ে নিন। জল ঝরিয়ে আধা চা চামচ নুন ও এক চা চামচ হলুদ গুঁড়ো মাখিয়ে মিনিট পনেরো ঢেকে রাখুন। সব সবজি ও পেঁয়াজ মোটা করে লম্বায় কেটে ধুয়ে নিন। খোসা শুদ্ধু রসুন থেঁতো করে রাখুন। কড়া গরম করে মাছ ভাজার মতো পর্যাপ্ত সর্ষের তেল দিন। সোনালী করে মাথা ভেজে তুলুন। অন্য একটি কড়াই চুলায় বসিয়ে ভালো করে গরম হতে দিন। পাঁচ ফোড়ন ও গোটা শুকনো লঙ্কা ছাড়ুন। ফোড়ন ফুটফাট করে সুগন্ধ ছড়ালে তিন টেবিল চামচ সর্ষের তেল দিন। ধোঁয়া বেরোলে পেঁয়াজ, রসুন, দুটি কাঁচা লঙ্কা একসঙ্গে ছাড়ুন। মিনিট খানেক নেড়ে নিয়ে ঝিঙ্গে বাদে সব সবজি কড়াইতে ঢালুন। চড়া আঁচে দুই মিনিট মত নেড়েচেড়ে ঢাকানা লাগিয়ে মজতে দিন। এরপর ঢাকানা খুলে দেখুন। সবজি গুলোর কাঁচা ভাব চলে গেলে ঝিঙ্গে দিয়ে পুরো আঁচে ভাজুন। ঝিঙ্গে থেকে জল বেরোতে শুরু  করলে মশলা গুঁড়ো, নুন ও আর দুটি কাঁচা লঙ্কা দিয়ে নেড়েচেড়ে আঁচ কমিয়ে ঢাকা দিয়ে দিন সবজি সেদ্ধ হওয়ার জন্য। কোনরকম জল দেবেন না। সবজির নিজস্ব জল ও নুনেই নরম হয়ে যাবে। পাঁচ সাত মিনিট পর ঢাকানা খুলে ভেজে রাখা মাছের মাথা ও চিনি দিন। চাইলে চিনি নাও দিতে পারেন। আবার নেড়ে নিয়ে ঢেকে দিন। দশ মিনিট কম আঁচে রেখে ঢাকা খুলে দেখে নিন সবজি সেদ্ধ হয়েছে কিনা। তবে সেদ্ধ হয়ে যাবে এই সময়ের মধ্যে। মাখা মাখা হবে। আগুন থেকে কড়াই নামিয়ে এক টেবিল চামচ কাঁচা সর্ষের তেল ছড়িয়ে দিন। গরম ভাতের সঙ্গে জমে যাবে।


প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না, তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]


https://www.facebook.com/aquagadget
Facebook Comments Box