কলকাতার ছবিতে বাংলাদেশের জ্যোতিকা জ্যোতি

কলকাতার সিনেমা কথাশিল্পী শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের রাজলক্ষী-শ্রীকান্ত। রাজলক্ষীর ভূমিকায় অভিনয় করছেন বাংলাদেশের অভিনয় শিল্পী জ্যোতিকা জ্যোতি। গত বুধবার কলকাতায় ছবির প্রথম শ্যুটিংয়ে ক্যামেরার সামনে দাঁড়ালেন জ্যোতি।

শ্যুটিং অভিজ্ঞতার বিবরণ দিতে গিয়ে তিনি নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে দেয়া স্ট্যাটাসে বলেছেন,‘অনেকটাই বেশী চাপ নিয়ে ফেলেছিলাম!
প্রথমদিন শুটিংয়ের দারুন অভিজ্ঞতার পর তা কমতে শুরু করেছে। আমার অসাধারণ ডিরেক্টর, চমৎকার টিম, অপরাজিতা ঘোষ দাস ও ঋত্বিক চক্রবর্তীর মত বড়মাপের দুজন সহশিল্পী মানুষ হিসেবে যারা আরো বড়, সব মিলিয়ে একটা সুখের জগতে ছিলাম যেন!

ঋত্বিক চক্রবর্তীর মতো বড় মাপের অভিনেতার সঙ্গে স্ক্রীন শেয়ার করাটাও ছিল টেনশনের। অথচ খুব সহজেই অদ্ভুত সিংক হয়ে যাচ্ছে আমাদের! হি ইজ এ গ্রেট কো-আর্টিস্ট ।
বাকীটা শুটিং এভাবেই শেষ করতে চাই।

আর কাছের-দুরের লক্ষ হাজার মানুষের শুভকামনায় আমি উৎসাহ পাচ্ছি ভীষন। বিশেষ করে বাংলাদেশ থেকে ভেসে আসা ভালোবাসার জোয়ার আমাকে বাড়তি শক্তি দিচ্ছে।

সবার এত্ত এত্ত শুভকামনা, ভালোবাসা নিশ্চই বৃথা যায়না। এটা আমার বিশ্বাস!
সব সীমানা, সীমাবদ্ধতা পেরিয়ে পর্দায় ভেসে উঠবে আমাদের এই ভালোবাসার রসায়ন, এ আশা রাখি।
সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা!’

জানা গেছে, এই ছবিতে হাল আমলের শ্রীকান্ত ও রাজলক্ষ্মীকে পাওয়া যাবে।প্রথম দিনে কলকাতা শহরের আশেপাশের বিভিন্ন এলাকায় সারাদিন শ্যুটিং করেছেন তারা। জ্যোতিকা জ্যোতি জানিয়েছেন, ছবির পরিচালক থেকে শুরু করে পুরো টিম আর কো-আর্টিস্টরা কাজে ভীষণ ভাবে সাহায্য করছেন তাকে। তাতে করে এই নতুন কাজে টেনশনের মাত্রাটাও কমে গেছে অনেকটাই।

এই ছবিতে তার সঙ্গে শ্রীকান্তের ভূমিকায় অভিনয় করছেন টালিগঞ্জের খ্যাতিমান অভিনয় শিল্পী ঋত্বিক চক্রবর্তী। ছবিটি পরিচালনা করছেন ‘বাকিটা ব্যক্তিগত’-খ্যাত পরিচালক প্রদীপ্ত ভট্টাচার্য।

‘শ্রীকান্ত ও রাজলক্ষ্মী’ সম্পর্কে প্রদীপ্ত জানান, অনুপ্রবেশ ও উদ্বাস্তু সমস্যা, নারীপাচার, চোরাকারবার, ধর্ম ও জাতির ভিত্তিতে সমাজের বিভেদ— এ ধরণের অনেক বিষয় তার সিনেমায় থাকবে। এখানে রাজলক্ষ্মী ওপার বাংলা থেকে চলে আসা ছিন্নমূল পরিবারের কন্যা। এখানে এসে নারী পাচার চক্রের জালে জড়িয়ে তাকেও নামতে হয় দেহব্যবসায়।

বিনোদন ডেস্ক

তথ্যসূত্রঃ ইন্টারনেট

ছবিঃ সংগ্রহ