অবশেষে পদ্মাবৎ

বিতর্ক আর সেন্সর বোর্ডের কাটছাট মাথায় নিয়েই অবশেষে আগামী ২৫ জানুয়ারী মুক্তি পেতে যাচেছ ‘পদ্মাবতী’। এই মুক্তির প্রক্রিয়ায় সঞ্জয় লীলা বনসালিকে সিনেমার নাম বদলে রাখকে হয়েছে ‘পদ্মাবৎ’। ফেলতে হয়েছে ২৬টি দৃশ্য। ধর্ম নিরপেক্ষ ভারতবর্ষে সিনেমা নিয়ে এমন ঘটনা সম্ভবত এটাই প্রথম।

কথা ছিলো ঐতিহাসিক কাহিনী অবলম্বনে নির্মিত ‘পদ্মাবৎ’ মুক্তি পাবে ১ জানুয়ারী। কিন্তু ভারতের কর্নি সেনা ও রাজপুতদের বিরোধিতার ফলে ছবিটি মুক্তি পায়নি। সেন্সর বোর্ডেও চলে ছবিরি বিভিন্ন দৃশ্য নিয়ে আপত্তির ঝড়। তারপরেই প্রস্তাব আসে ছবির নাম পরিবর্তন করার। ২৬টি দৃশ্য এবং নাম বদলে দিলেই এই সিনেমা মুক্তি পেতে পারে-এমন কথাই পরিচালককে জানিয়ে দেয়া হয়েছিলো সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ফিল্ম সার্টিফিকেশনের পক্ষ থেকে। ওই একই দিনে অক্ষয় কুমারের ইতিমধ্যে বহুল আলোচিত সিনেমা ‘প্যাডম্যান’ মুক্তি পাচেছ বিভিন্ন হলে।

১৯০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত এই সিনেমার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে ভারতের রাজস্থানের ধর্মীয় সংগঠন কর্নি সেনা। তাদের দাবি ছিলো ১৩ শতাব্দীতে রাজস্থানের রাণী পদ্মিনীকে অপমান করা হয়েছে এই ছবিতে। প্রতিবাদ আর ধর্মীয় দৃষ্টিবকাণ থেকে এই বিরোধিতা এমন জায়গায় পৌঁছে যে পরিচালক, নায়িকা দীপিকা পাডুকোনও হত্যার হুমকীর শিকারে পরিণত হন। দীপিকাকাকে প্রকাশ্যে পুড়িয়ে মারারও হুমকী দেয় মৌলবাদী বিভিন্ন সংগঠন। পত্রপত্রিকায়ও এই সিনেমা নিয়ে প্রচুর আলোচনা চলে। মুম্বাইয়ের অনেক অভিনয় শিল্পী সংকটের সময়ে পাশে এসে দাঁড়ান সঞ্জয় লীলা বনসালির। শেষে তাদের এই হুমকী আর দাবির সামনে আত্নসমর্পন করেই মুক্তি পেতে চলেছে আলোচিত ‘পদ্মাবৎ।

বিনোদন ডেস্ক

তথ্যসূত্রঃ বাংলা নিউজ কলকাতা

ছবিঃ গুগল