জিম্বাবুয়ে ঢাকায়, শ্রীলংকা কাল

আহসান শামীমঃ কয়েকদিন আগে সাব্বিরের বলে টাইগার দলের ওয়ান ডে অধিনায়ক মাশরাফির বাঁ হাতের আঙ্গুলে আঘাত পান। তবে বিষয়টা খুব গুরতর না হওয়ায় আসন্ন ত্রিদেশীয় সিরিজে মাশরাফির খেলতে কোন সমস্য হবে না।পরদিন থেকে তিনি নিয়মিত অনুশীলনও করে যাচ্ছেন।

গত মঙ্গলবার বাঁ হাতের আঙ্গুলে আঘাত পান পেসার রুবেল আর ওপেনার ইমরুল কায়েস।তাদের আঘাত গুরুতর হওয়ায় ত্রিদেশীয় সিরিজে তাদের খেলা নিয়ে শঙ্কায় বাংলাদেশ শিবির।অবশ্য দুজনের ব্যাপারে পরিস্কার ধারনা পাওয়া যাবে আরেকটা পরীক্ষার পর। ইমরুলের আঘাত বেশি গুরুতর না হলেও রুবেলের আঘাত কিছুটা গুরুতর।জানিয়েছে টাইগার দলের ফিজিও দেবাশীষ চৌধুরী । বৃহস্পতিবার রুবেলের আরেক দফা করানোর পর রিপোর্ট পর্যালোচনা করে তার সঠিক অবস্থা সম্পর্কে জানা যাবে।অবশ্য দেবাশীষ জানিয়েছেন বোলিংয়ের ক্ষেত্রে সমস্যা না হলেও, ব্যাটিং করতে পারবেন না রুবেল।

ইমরুলকে নিয়ে শঙ্কা না থাকলেও এখনও নাকি ব্যাথা অনুভব করছেন এই ব্যাটসম্যান। অবশ্য এটাকে সাময়িক বলে মনে করছেন দেবাশীষ। তিনি জানিয়েছেন আসন্ন সিরিজের আগেই সুস্থ হয়ে উঠতে পারবেন ইমরুল কায়েস।

অন্যদিকে ত্রিদেশীয় সিরিজে অংশ নিতে শনিবার সকাল ১১ টায় ঢাকায় আসছেন হাথুড়াসিংহের শ্রীলংকা । বাংলাদেশের হেড কোচের পদ থেকে পদ্যত্যাগ করার পর এটাই বাংলাদেশে প্রথম সফর। দারুণ জটিলতায় থাকা জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দল ঢাকায় নামছে আজ শুক্রবার। তাদের ১০ জানুয়ারি ঢাকায় আসার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত আসতে পারেনি সময় মতো। এজন্য বিসিবি একাদশের বিপক্ষে তাদের একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচ না হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলে জিম্বাবুয়ে দল দেশে ফিরে গেলেও দ্বিপাক্ষিক সিরিজের জন্য থাকবেন হাথুরুসিংহের বাহিনী। ২৭ই জানুয়ারি আসরের ফাইনাল ম্যাচের পরদিন চট্টগ্রামে যাবে শ্রীলঙ্কা এবং বাংলাদেশ দল।

চট্রগ্রামে শ্রীলংকা দুইদিনের প্রস্তুতি ম্যাচের পরে ৩১ই জানুয়ারি সিরিজের প্রথম টেস্ট ম্যাচ ও ঢাকায় ফিরে ৮ই ফেব্রুয়ারি সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচে অংশ নেবে দুই দল।এরপরে ঢাকায় ১৫ই ফেব্রুয়ারি সিরিজের প্রথম টি-টুয়েন্টি খেলে সিলেট গিয়ে সেখানে ১৮ই ফেব্রুয়ারি সিরিজের দ্বিতীয় এবং শেষ টি-টুয়েন্টি ম্যাচে অংশ নেবে তারা।

ছবিঃ গুগল