চলে গেলেন শাম্মী আক্তার

বাংলা সংগীতের প্রখ্যাত কণ্ঠশিল্পী শাম্মী আখতার। আজ ১৬  জানুয়ারি বিকাল ৪টা ২০ মিনিটে তিনি চলে গেলেন। মরণব্যাধি ক্যান্সার তাকে কেড়ে নিলো সুরের পৃথিবী থেকে। তার বয়স হয়েছিলো ৬২ বছর।
শাম্মী আক্তারের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন তার স্বামী আকরামুল ইসলাম। তিনি জানান, আজ দুপুর নাগাদ শাম্মী আক্তারের শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। এরপর বারডেম হাসপাতালে নেয়ার পথেই তিনি মারা যান। বর্তমানে শান্তিনগরের নিজ বাসাতেই রয়েছে তার মরদেহ। আগামীকাল বুধবার (১৭ জানুয়ারি) বাদ জোহর তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে এবং তারপর শাহজাহানপুর কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।
২০১২ সালে ব্রেস্ট ক্যানসারে আক্রান্ত হন শাম্মী আক্তার। তারপর কেটে গেছে ছয়টি বছর। শাম্মী আক্তারকে ছেড়ে যায়নি মরণব্যাধী ক্যানসার। শেষে নিওেভ গেলো তাঁর জীবন প্রদীপ।

নন্দিত এই কণ্ঠশিল্পী চলচ্চিত্রের গান গেয়েই পেয়েছেন অসামান্য খ্যাতি। তার মিষ্টি সুরেলা কণ্ঠে কালজয়ী হয়েছে অনেক গান। এর মধ্যে ‘ঐ রাত ডাকে ঐ চাঁদ ডাকে’, ‘বিদেশ গিয়া বন্ধু তুমি আমায় ভুইলো না’, ‘ঢাকা শহর আইসা আমার আশা ফুরাইছে’, ‘আমি যেমন আছি তেমন রবো’, ‘ভালোবাসলেই সবার সাথে ঘর বাঁধা যায় না’ গানগুলো অন্যতম।
বরিশালের ওস্তাদ গৌর বাবুর কাছে শাম্মী আক্তারের গানে হাতে খড়ি। এরপর আরও কয়েকজন ওস্তাদের কাছে গানের দীক্ষা নিয়েছেন তিনি। বেতারে শাম্মী আক্তারের অভিষেক হয় ১৯৭০ সালে। নজরুলসংগীত ‘এ কি অপরূপ রূপে মা তোমায়’ গানটি গেয়ে প্রশংসিত হন সেই সময়।
ঢাকাই ছবির গানে প্রথম কণ্ঠ দেন আজিজুর রহমান পরিচালিত ‘অশিক্ষিত’ (১৯৮০) ছবিতে। এতে তার গাওয়া ‘আমি যেমন আছি তেমন রবো’ ও ‘ঢাকা শহর আইসা আমার আশা ফুরাইছে’ গান দুটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করে। গাজী মাজহারুল আনোয়ারের লেখা ও সত্য সাহার সুর-সংগীতের এই দুই গান বদলে দেয় শাম্মী আক্তারের ক্যারিয়ার। এরপর থেকে তুমুল ব্যস্ত হয়ে পড়েন এই প্লেব্যাক শিল্পী। ধারণ করেন তিন শতাধিক গান।
শাম্মী আক্তার ২০১০ সালে জাকির হোসেন রাজু পরিচালিত ‘ভালোবাসলেই ঘর বাঁধা যায় না’ ছবির শিরোনাম সংগীতে কণ্ঠ দেন। আর এই গানটির জন্য তিনি অর্জন করেন শ্রেষ্ঠ কণ্ঠশিল্পী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার।
ব্যক্তিজীবনে শাম্মী আক্তার আকরামুল ইসলামের স্ত্রী। তারা বিয়ে করেছিলেন ১৯৭৭ সালের ২২ ফ্রেব্রুয়ারি। তাদের সংসারে কমল ও সাজিয়া নামের দুই সন্তান আছে।

বিনোদন ডেস্ক

তথ্যসূত্র ও ছবিঃ ইন্টারনেট