ফেলু’দা যখন …

পরিচালক শান্তনু ঘোষ ফেলু মিত্তির কে নিয়ে আসছেন ইতিহাসবিদ হিসেবে।তাই গোয়েন্দা ফেলুদাকে এবার আমরা  ‘কলকাতায় কোহিনুর’-এ দেখবো একজন ইতিহাসবিদ হিসেবেই। সাত্যকি বসু নামে এ ছবিতে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় একজন ইতিহাসবিদ।ছবিতে সাত্যকি বসু কোহিনুরের ইতিহাস চর্চাতেই মেতে থাকেন সারাক্ষন। কলকাতায় কি কোহিনুর আছে? এর উত্তর খুঁজতে গিয়ে এক রহস্যের উন্মোচন করেন তিনি। ছবিটি হিস্টোরিক্যাল মিস্ট্রিই এই ছবির মূল বিষয়।পরিচালক বলেন,  ইতিহাস নিয়ে গোয়েন্দা গল্প সে ভাবে টলিউডে দেখা যায়নি। সেই অভাবই পূরণ করবে এই ছবি। গল্পটা শুনেই সৌমিত্র জেঠু বলেছিলেন, ‘স্টোরিটা তো বেশ ইন্টারেস্টিং’।

এই ছবিতে দেখা যাবে টলিউডের আর এক বর্ষীয়ান অভিনেতা বরুণ চন্দকে। তাঁর চরিত্রটির নাম তাপসরঞ্জন, যে ফ্রিম্যাসন, ইতিহাসবিদ এবং কোহিনুর বিশেষজ্ঞ। তাপসরঞ্জনের সহকারীর চরিত্রে মীরকে ভাবা হচ্ছে।

কোহিনুরের পাশাপাশি কলকাতার ইতিহাসও তুলে ধরা হবে এই ছবিতে। সেই জন্য শ্যুট করা হবে কলকাতা মিউজিয়াম, সেন্ট পলস ক্যাথিড্রাল, ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালের মতো ঐতিহ্যবাহী স্থানে।

একজন বলিউড অভিনেত্রীর ভূমিকায় অর্পিতা চট্টোপাধ্যায়কে দেখা যেতে পারে। এ ছাড়া একটি বিশেষ চরিত্রে থাকতে পারেন মানালি দে কিংবা মনামী ঘোষও।

 এই ছবির মিউজিক করছেন পিনাক ভট্টাচার্য। সিনেম্যাটোগ্রাফি করছেন বিক্রম আনন্দ।ছবির শ্যুটিং শুরু হবে ফেব্রুয়ারির শেষ অথবা মার্চের শুরুর দিকে। ছবিটি মুক্তি পেতে পারে চলতি বছরের আগস্ট কিংবা নভেম্বর মাসে।

ছবি: গুগল