কাল কি হবে?

আহসান শামীমঃ আগামীকাল শুক্রবার মাঠে নামার আগে দুই দলের অবস্থা দুই রকম। জিম্বাবুয়েকে ৮ উইকেটে হারিয়ে দিয়ে ফুরফুরে মেজাজে বাংলাদেশ। বিপরীতে সেই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারের হতাশা সঙ্গী হয়েছে শ্রীলঙ্কার। তাছাড়া গত কয়েক বছর ধরে দেশের মাটিতে দুর্দান্ত দল হয়ে ওঠা টাইগারদের নিয়ে আলাদাভাবে ভাবতেই হচ্ছে শ্রীলঙ্কাকে।

গুরুত্বপূর্ণ আর মর্যাদাপূর্ণ এমন ম্যাচের টিকিটে শ্রীলংকার নামের বানান ঠিক থাকলেও  , হাই-ভোল্টেজ ম্যাচের টিকেটে বাংলাদেশ বানানটাই ভুল।‘বি-এ-এন-জি-এল-এ-ডি-এ-এস-এইচ’ ইংরেজিতে এভাবেই লেখা হয় বাংলাদেশ।  বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার ম্যাচের টিকেটে লেখা ‘বি-এন-এ-এন-জি-এল-এ-ডি-এ-এস-এইচ’ অর্থ্যাৎ বাংলাদেশ বানানের শুরুতে অতিরিক্ত একটা ‘এন’ লেখা। টিকেটে এই বানান ভুলের জন্য বিসিবি সভাপতি দুঃখ প্রকাশ করে দায়ীদের শাস্তি দেয়ার কথা বলেছেন।

ত্রিদেশীয় সিরিজে আগামীকাল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ।শ্রীলংকার  বিপক্ষে বাংলাদেশের মাশরাফি বিন মর্তুজা ও রুবেল হোসেন সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী পাঁচ জনের মধ্যে দুইজন ।কাটার মাষ্টার মুস্তাফিজও ইন্জুরীর পর লাইন লেন্থে গতি খুঁজে পেয়েছেন।ব্যাট ও বল হাতে দুর্দান্ত পারফর্মেন্সে  সাকিব । ওপেনার তামিমও আছেন দারুন ফর্মে।

শুক্রবারের যুদ্ধটা এক দাগে টাইগার সিনিয়র খেলোয়াড়দের সাথে বাংলাদেশ দলের সাবেক কোচ হাথুরাসিংহের । তিন বছর বাংলাদেশের কোচ হিসাবে নন্দিত নিন্দিত হাতুড়াসিংহে একচ্ছত্র ক্ষমতার অপব্যাবহারে, টাইগার দলের সিনিয়র খেলোয়াদের সাথে অপ্রকাশ্য মনমলিন্যতায় জড়িয়ে হঠাৎ করে পদত্যাগ করেন।তাঁর এই পদত্যাগে সন্তুষ্ট টাইগার দলের খেলোয়াড়া, সাকিব, মুশফিক, মাশরাফিদের অনুরোধে ত্রিদেশীয় সিরিজে হাথুড়ারার জায়গায় কাউকে কোচ হিসাবে নির্বাচন করেনি বিসিবি।হাথুড়ার কারনেই বাংলাদেশ ছেড়ে চলে যান বর্তমান জিম্বাবুয়ের কোচ হিথ স্ট্রিক। তাই তীব্র উত্তেজনার পারদ উঠছে ওপরে।

জিম্বাবুয়ের কাছে হেরে শ্রীলংকার হয়ে হাথুড়া প্রথম প্রথম পরীক্ষায় ফেল।যে কারনে মরিয়া হাথুড়া টাইগারদের বিপক্ষে শ্রীলংকার জয় নিয়ে।সাকিব-তামিমদের দুর্বলতা সম্পর্কেও হাথুড়ার যথেষ্ট জ্ঞান রাখেন।ম্যাথিউস বাহিনীকেও যে এই বিষয়ে তিনি দীক্ষা দিবেন তা নিশ্চিত। এই কারণে টাইগারদের শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের থেকেও বেশি লড়াই করতে হবে তাদের সাবেক কোচ হাথুরুসিংহের সাথেই।যদিও হাথুরুকে নিয়ে খুব একটা ভাবছে না বাংলাদেশ দলের সহকারী এবং ফিল্ডিং কোচ রিচার্ড হ্যালস্যাল ও টেকনিক্যাল ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন। কেননা তারা খুব ভালো করেই জানেন টাইগাররা যেদিন নিজেদের সেরা ফর্মে থাকে সেদিন সকল বাধাই অতিক্রম করা সম্ভব।

তবে শ্রীলঙ্কা দলে পেস আক্রমণ বেশ শক্তিশালী। নুয়ান প্রদীপ, দুশমন্থ চামিরার, সঙ্গে আছেন অভিজ্ঞ থিসারা পেরেরা ও সুরাঙ্গা লাকমল। তাদের সঙ্গ দেয়ার জন্য আছেন আনকোরা আরেক পেসার শিহান মদুশঙ্কা। এই তরুণও হাথুরুসিংহের তুরুপের তাস হতে পারেন।বাংলাদেশ দলও পেস আক্রমণে বেশ শক্তিশালী। রুবেলের সঙ্গে আছেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা, মুস্তাফিজুর রহমান এবং দুই পেস অলরাউন্ডার আবুল হাসান ও মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন।মিরপুরের উইকেট দেখে মুগ্ধ পেসার রুবেল। এমন উইকেটেও ভালো রানের সম্ভাবনা দেখছেন এই গতি তারকা, “উইকেট খুব সুন্দর। ভালো ব্যাটিং করতে পারলে ভালো রান করা সম্ভব এখানে। স্পিনেও খুব সহয়তা আছে। মুস্তাফিজ বল খুব ভালো কাটার ধরছে। ব্যাটসম্যানরা যদি পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলতে পারে। তবে এই উইকেটে ভালো রান তোলা সম্ভব।”

ছবিঃ গুগল