জয় চায় শ্রীলঙ্কা, একই আশা টাইগারদেরও

আহসান শামীম

ত্রিদেশীয় সিরিজের পাঁচ ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে।এর মধ্যে তিনটাতেই জয় পেয়েছে বাংলাদেশ, একটায় জয় পেয়েছে জিম্বাবুয়ে অন্যটায় শ্রীলঙ্কা। আগামীকাল শ্রীলঙ্কা বাংলাদেশের বিপক্ষে  ম্যাচে জিততে পারলে ফাইনাল খেলতে পারবে। গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচের আগে মিরপুর শের-ই-বাংলায় এসে প্রথমেই কোচ ও ম্যানেজারকে নিয়ে উইকেটে দেখতে চলে গেলেন শ্রীলঙ্কান অধিনায়ক দিনেশ চান্দিমাল।মিরপুরের উইকেট নিয়ে বেশ চিন্তিত তিনি। সংবাদ সম্মেলনে লঙ্কান অধিনায়ক জানালেন , ‘প্রেসের সামনে আসার আগে আমি, কোচ ও ম্যানেজার মাঝমাঠে গিয়ে পিচ দেখেছি। দুই, তিনটা উইকেট প্রস্তুত করা হচ্ছে। জানি না কোনটাতে খেলা হবে। তারা কোন উইকেট দেবে সেজন্যই অপেক্ষা করছি। আমি বুঝতে পারছি না কেন তারা এতটা জটিল।’ অবশ্য উইকেট যেমনই হোক না কেন , টাইগারদের বিপক্ষে জয় দিয়ে ফাইনালে খেলতে শ্রীলংকা প্রস্তুত বলে জানালেন লঙ্কান অধিনায়ক দিনেশ চন্দ্রিমাল।

অন্যদিকে এই টুর্নামেন্টের কোনো ম্যাচ হারতে চান না বলেই জানিয়ে দিলেন বাংলাদেশ দলের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘কালকের ম্যাচটা আমাদের কাছে ফাইনালের মতোই গুরুত্বপূর্ণ। তবে প্রত্যেকটা ম্যাচই আমাদের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ।’

ত্রিদেশীয় সিরিজে তিন ম্যাচ খেলে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলে এখন সেরা অবস্থানে রয়েছে মাশারফি বিন মুর্তজার দল। তিন ম্যাচ খেলে চার পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে শ্রীলঙ্কা। চার ম্যাচ খেলে চার পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে জিম্বাবুয়ে।

ইতিমধ্যেই ২৭ জানুয়ারীর ফাইনালে বাংলাদেশ নিশ্চিত।প্রতিপক্ষ নির্বাচনী লড়াইয়ে ২৫ জানুয়ারী শ্রীলংকা লড়বে টাইগারদের বিপক্ষে। ঐ ম্যাচে শ্রীলংকার হারের ধরনের ওপর নির্ভরশীল জিম্বাবুয়ের ফাইনাল খেলার বিষয়টা। আর শ্রীলংকা জিতে গেলে তারাই হবে ফাইনালে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ।

এমন সমীকরনের হিসাবে ২৫ জানুয়ারী টাইগারদের বড় জয়ের দিকে তাকিয়ে আছে জিম্বাবুয়ে দল। টাইগারদের হারিয়ে ফাইনালে ওঠার জন্য শক্ত অনুশীলনে ব্যাস্ত শ্রীলংকা ।

মঙ্গলবার টাইগারদের দেওয়া ২১৭ রানের টার্গেট জয় করতে না পারার কষ্টে পোড়াচ্ছে জিম্বাবুয়েনদের।ম্যাচ শেষে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে দলের প্রতিনিধি হয়ে আসা জার্ভিস শ্রীলংকার বিপক্ষে ম্যাচের জন্য বাংলাদেশ দলকে শুভকামনা জানিয়েছেন, ‘এখন এটা রান রেটের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। আশা করি বাংলাদেশ পরবর্তী ম্যাচে আমাদের একটা ফেভার করবে। আমাদের উচিৎ হয়নি কারোর হাতে বিষয়টা ছেড়ে দেয়া। আমাদের নিজেদেরই কাজটি করা উচিৎ ছিলো। বাংলাদেশকে আমাদের পক্ষ থেকে আগামী ম্যাচের জন্য শুভকামনা জানাচ্ছি।’ আর ১২৫ রানে অলআউট হয়ে ৯১ রানে হারটা মানতে পারছেন না জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক । ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে হারের জন্য বাংলাদেশের বোলিং নয় বরং নিজেদের ভুলকে দায়ী করেছেন তিনি।

ছবিঃ গুগল