ধারাবাহিক যৌনজীবন যাপন করুন

একটা নির্দিষ্ট বয়সের পর নিয়মিত সঙ্গমের পরামর্শ দিয়ে থাকেন চিকিৎসকরা। সঙ্গমে অনেকখানি ক্যালোরি ঝরে যায়, মেজাজ ভাল থাকে, ত্বক ও চুলেও থাকে জেল্লা। এ ব্যাপারগুলো কমবেশী সবাই জানেন।তবে অনেকেই জানেন না যৌনজীবনে ধারাবাহিকতা না থাকলে শরীরে অনেক রোগ বাসা বাঁধতে পারে।

 ভাইরাল অ্যাটাক:
সঙ্গমের ধারাবাহিকতা শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে। ফলে বিভিন্ন ধরনের রোগের বিরুদ্ধে ফাইট দিতে পারে শরীর। অ্যালার্জির, সর্দি-কাশি, ফ্লুয়ের মতো সাধারণ রোগকে দূরে রাখে।কারণ এসবের বিরুদ্ধে আপনার শরীর বেশি শক্তিশালীভাবে লড়াই করতে তখন সক্ষম থাকে তখন।

উচ্চ রক্তচাপ
ধারাবাহিক সুস্থ্য-স্বাভাবিক মিলন হতাশা ও দুঃশ্চিন্তা থেকে মনকে মুক্ত রাখে।তবে সঙ্গমে অনিয়ম হলে উল্টোটাই ঘটতে পারে। তাতে বেড়ে যাবে শরীরের রক্তচাপ। আর উচ্চ রক্তচাপ জনিত কারণে শরীরে যে কোন রোগ বাসা বাধঁতে পারে সহজেই।

উত্তেজনা:
অতিরিক্ত উত্তেজনাকে নিয়ন্ত্রণে বড় ভূমিকা পালন করে সুস্থ্য-স্বাভাবিক যৌন জীবন।শরীরে এনডরফিন ও অক্সিটোসিন হরমোন ক্ষরণে ব্যায়ামের মতোই  সাহায্য করে সঙ্গম ।সুতরাং সঙ্গমে ধারাবাহিকতা না থাকলে উত্তেজনা নিয়ন্ত্রণের ক্ষমতাও  অনেক কমে যায়।

প্রস্ট্রেট ক্যানসার:
যৌন জীবন স্বাভাবিক থাকলে মূত্রথলিতে ক্যানসারের সম্ভাবনা অনেক কম থাকে।তাই এ সমস্যা থেকে আপনাকে রক্ষা করবে স্বাভাবিক যৌন জীবন।

 ঋতুস্রাবে হয় যন্ত্রণাদায়ক:
মহিলাদের শরীর সুস্থ থাকে টেস্টোস্টেরন ও ইস্ট্রোজেন লেভেলে সমতা থাকলে ।একমাত্র যৌন মিলন দেহে হরমোনের সামঞ্জস্য বজায় রাখতে সাহায্য করে।শরীরে ইস্ট্রোজেনের মাত্রা বাড়ে দীর্ঘদিন সঙ্গমে লিপ্ত না হলে।তখন ঋতুস্রাবে হয়ে ওঠে যন্ত্রণাদায়ক। তাই মিলনে ধারাবাহিকতা না থাকলে মহিলাদের শরীরে সমস্যা তৈরি হতে পারে।

ঘুমের অভাব:

 মিলনের ফলে শরীর থেকে প্রোল্যাকটিন হরমোন ক্ষরণ হয়।এতে ঘুমটা আরামদায়ক হয়।সঙ্গমে রতিসুখ না হলে ইনসোমনিয়া হওয়ার সম্ভাবনা থাকে অনেক বেশী।

তথ্য সূত্র: ইন্টানেট

ছবি: গুগল