সূচনায় মুমিনুলের দুর্দান্ত শত রান

আহসান শামীম

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টেষ্টের প্রথম দিনে নিজেদের সর্বোচ্চ ৩৭৪/৪ রান করেছে বাংলাদেশ। টেস্টের শুরুর দিনে তাদের আগে সেরা ছিল ২০১২ সালে খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৮ উইকেটে ৩৬৫ রান।

টাইগারদের হেড কোচ হাথুরাসিংহ থাকালীন টেষ্ট দল থেকে বাদ পরা মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের নেতৃত্বে,আরেক বাদ পরা খেলোয়াড় মুমিনুলের দুর্দান্ত অপরাজিত শতক সহ রেকর্ড , দিনভর লঙ্কান বর্তমান হেড কোচ হাথুরাসিংহ মাঠে বসে শুধুই দেখেছেন।আজ চট্রগ্রামে টসে জিতে লঙ্কানদের ফিল্ডিংএ পাঠান বাংলাদেশ টেষ্ট দলের নেতৃত্ব দেওয়া মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।সাকিবের ইন্জুরীর কারনে চিটাগং টেষ্টের জন্য রিয়াদকে অধিনায়ক করা হয়।মুমিনুলের হারা না ১৭৫ রানের ইনিংস, মুশফিকের ৯২ ও তামিমের হাফ সেঞ্চুরিতে প্রথম ইনিংসে চার উইকেট হারিয়ে ৩৭৪ রানে প্রথম দিন শেষ করেছে বাংলাদেশ। যা টেস্টের প্রথম দিনে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড।

টাইগারদের ব্যাট হাতে প্রথম সেশনে দলকে ভালো শুরু করে দিয়ে দুই ওপেনারই সাজঘরে ফিরে যান। তামিম ইকবাল ৫৩ বল খেলে ৫২ রান করে আউট হন। লাঞ্চ বিরতির আগ মুহূর্তে লক্ষণ সান্দাকানের বলে ব্যক্তিগত ৪০ রানে এলবিডব্লিউ হন ইমরুল কায়েস।যদিও পরে দেখা যায় রিভিউ নিলে তিনি আউট হতেন না।রিভিউর ব্যাপারে নন স্ট্রাইকে থাকা মুমিনুলের সায় না থাকায় রিভিউর সুযোগকে কাজে লাগননি ইমরুল।দলীয় ১২০ রানে দুই উইকেট পরে যাওয়ার পর মুশফিকুর রহিম ও মুমিনুল হকের ব্যাটে এগোতে থাকে বাংলাদেশ।

দ্বিতীয় সেশনে বাংলাদেশ কোনও উইকেট হারায়নি। এই সেশনেই মুমিনুল হক তাঁর টেস্ট ক্যারিয়ারের পঞ্চম সেঞ্চুরি তুলে নেন। তৃতীয় সেশনে মুশফিকুর রহিম ব্যক্তিগত অর্ধশত পূরণ করেন। সেঞ্চুরির কাছাকাছি গিয়ে ব্যক্তিগত ৯২ আর দলীয় ৩৫৬ রানে সুরঙ্গা লাকমলের বলে উইকেটরক্ষকের হাতে কট বিহাইন্ড হন মুশফিকুর রহিম। তৃতীয় উইকেট জুটিতে ২৩৬ রানের পার্টনারশিপ গড়েন মুশফিকুর রহিম ও মুমিনুল হক। টেস্টে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে তৃতীয় উইকেট জুটিতে এটাই সেরা রানের জুটি। আর যে কোন উইকেট জুটিতে এটা চতুর্থ। গেল বছর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৩৫৯ রানের পার্টনারশিপ গড়েছিলেন সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিম।

১৭৫ রানের ইনিংসে দারুণ মাইলফলক গড়েছেন মুমিনুল। প্রথম বাংলাদেশী ব্যাটসম্যান হিসেবে সবচেয়ে দ্রুত ২ হাজার রানের মাইলফলক গড়েছেন তিনি। মাইলফলক গড়তে মুমিনুলের দরকার ছিল ১৬০ রানের। তিনি করেছেন ১৭৫ রান। সেই সাথে বাংলাদেশে ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্টে দুই হাজার রান পূর্ন করেন মুমিনুল।৪৭ ইনিংসে গড়া এই মাইলফলকটা অন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছে মুমিনুলকে ।ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলিকেও পিছনে ফেললেন তিনি।অন্যদিকে সব সংস্করণ মিলিয়ে বর্তমানের সেরা ব্যাটসম্যান কোহলির দুই হাজার রান করতে দরকার হয়েছিল ৫৩ ইনিংস।

ইন্জুরিতে আক্রান্ত টেষ্ট অধিনায়ক সাকিব আজ সকালের ফ্লাইটেই স্ত্রী কে নিয়ে চট্রগ্রামে পৌঁছে মাঠে বসে খেলা উপভোগ করেন।
মুশফিক আউট হওয়ার পরের বলেই বোল্ড হন লিটন দাস।মুমিনুলকে নিয়ে হাঁসি মুখে দিন শেষ করেন অধিনায়ক রিয়াদ।

ছবিঃ ইএসপিএন