ব্যস্ত নিরব…

nirob2pranerbanglaA2নিরবকে ধরা এখন চাট্টিখানি কথা নয়। আজ এই শহরে তো কাল ওই শহরে।তার সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ‘ভোলা তো যায় না তারে’নিয়েই ব্যস্ত এখন। বিভিন্ন শহরে গিয়ে দর্শকদের সঙ্গে হলে বসে দেখছেন ছবিটি। তাছাড়া এখনও ৭/৮টি ছবি মুক্তির অপেক্ষায়।আর কাজ করছেন এখন তাহমিনা জামানের ‘মেয়ে কার,’মো: জাকিরের ‘রাঙা মন’,রয়েল খানের ট্রেন রিটার্ণ,’ ওয়াকিল আহমেদের ‘লাভ ইন কোরিয়া’, আহমেদ আলী মন্ডলের‘প্রবাসীর প্রেম’,সাঈদ চন্দনের ‘টার্গেট’,।তাই সময় মেলা ভার। তবুও খোঁজ খোঁজ। শেষতক মুঠোফোনেই তাকে যখন পেলাম তখন নিরব চাপাইনবাবগন্জে।মাত্র ছবি দেখে হল থেকে বেড়িয়েছেন।

জানতে চাইলাম বিয়ের রিসিপশন তো সপ্তাহও হলো না এরই মধ্যে এত ব্যস্ততা? নিরব হেসে বলেন,বিয়ে তো হয়েচে ২০১৪ সনের ডিসেম্বরে।এখন আর নতুন না্।তবে এতো দেরীতে রিসিপশন কেন? সেনাকুন্জ খালি পাচ্ছিলাম না।তাই অপেক্ষা একটু বেশী হয়ে গেলো।

আমরা তো ভাবছিলাম বৌয়ের ফ্যামেলী মেনে নেয়নি তােই দেরী হলো? না না বিয়ের কিছুদিন পরই এসব ঝামেলা চুকেবুকে গেছে।

তাশফিয়া তাহেরা চৌধুরী ঋদ্ধির সঙ্গে ফেইস বুকেই নিরবের পরিচয়।আর সেই সুবাদে ১০ মাসের মাথাই তারা গোপনে বিয়েটা সেরে ফেলেন।নিরবের ফ্যামেলী রাজী থাকলেও মেয়ের বাড়ি থেকে প্রথমে আপত্তি ওঠে এবঙ তা মামলা মোকদ্দমা পরযন্ত  গড়ায় অবশেষে সব ক্ষান্ত।বিয়ের পর হানিমুন বলতে যা বুঝায় তেমনটি হয়নি তবে দুজনে একসঙ্গে মালোযেশিয়া ঘুরতে গেছেন।

এতো ব্যস্ততা তো বৌকে সময় দেন কখন? বলেন,আমার কাজের বাইরে বাকী সময়টা পুরোটাই তো ওর।তা
ছাড়া ও তো পড়াশোনা নিয়ে আছে। নর্থসাউথ ইউনিভা্র্সেটিতে বি.বি.এ পড়ছে ঋদ্ধি।

আপনাকে প্রফেশনালি এতো ব্যস্ত দেখে তার পক্ষ থেকে কি কোন অভিযোগ আছে? দেখুন, ও তো আমার সম্পর্কে সব জেনে বুঝেই আমাকে বিয়ে করেছে।ফেলে তেমন কোন সমস্যা নাই।nirob

একের পর এক ছবি করে যাচ্ছেন, দর্শক নিয়ে কতোটুকু সেটিসফাইড? দেখুন আমরা হতাশ নই। আমাদের ছবির দর্শক আছে তারা হলে যায় এবং সিনেমা দেখে।তবে উন্নতমানের হল আর হলের পরিবেশ ভালো করা গেলে আরও দর্শক হবে। ঢাকাতে এখন ভালো হল হয়েছে এমন সব হল যদি ঢাকার বাইরে ও হতো তাহলে অনেক দর্শক হলমুখী হতো।

এখন যৌথ প্রযোজনার ছবি অনেক হচ্ছে এ ষিয়টা কি দর্শকদের হলমুখী করতে সাহায্য করবে?

যৌথপ্রযোজনার ছবি এখানে অনেক আগে থেকেই হচ্ছে এটা নতুন কোন বিষয় না। এগুলো বিরাট বাজেটের ছবি এই বাজেটের তুলনায় আমাদের মার্কেট ছোট আর তাছাড়া আমাদের এখানকার দর্শক যারা ছবি দেখেন তারা আমাদের এখানকার ছবিই দেখতে পছন্দ করেন।

সিনিয়র,জুনিয়র সব নায়িকাদের সঙ্গেই আপনি ছবি করছেন্। তবে কাদের সঙ্গে অভিনয় করে বেশী সাচ্ছন্দ্য বোধ করেন।বলেন, আসলে সিনিয়রদের সঙ্গে কাজ করলে আনেক কিছু শেখা যায়। আমি মৌসুমি আপু, শাবনূর আপু, পপি আপু ওদের সঙ্গে কাজ করেছি।সবাই খুব হেল্পফুল।আমার ওদের সঙ্গে কাজ করতে ভালো লাগে। নতুনদের সঙেগ ও যে কাজ করতে ভালো লাগে না তা নয়।

ছোটপর্দাতে কি কাজ করা ছেড়ে দিয়েছেন? না ছাড়নি। স্পেশাল কোন কাজ হলে করি। আর বিজ্ঞাপনে কাজ করি।আর তেমন সময় পাই নাঅ

স্বাগতা জাহ্নবী