শুনতে কি পাও আমাদের কন্ঠস্বর…

আবিদা নাসরীন কলি: মাত্র তো তোমাকে দেখলাম সেদিন।তা-ও টিভি পর্দায় পাইলটের ড্রেসে।কিন্তু আমি জানি তুমি আমাকে চিনবেনা আর কোনদিনই।একটা দূর্ঘটনা তোমাকে কেড়ে নিয়ে গেলো আমাদের থেকে অনেক অনেক দূরে।আকাশের ওপারে আকাশ আছে।ওখান থেকে শুনতে কি পাও আমাদের কন্ঠস্বর…?

মায়ের সঙ্গে

পৃথুলা আমি জানি তোমার জন্য কতটা হাহাকার জন্ম নিয়েছে আমাদের সবার মাঝে।আমাদের মধ্যে যে বড়ো ভালো মানুষের অভাব।বড়ো অবহেলায় আমরা হারিয়ে ফেলি সব সবকিছু।ভালোবেসে লালন করার অভ্যেসটা আমরা ভুলতে বসেছি।তুমি মেয়ে বলে আজ অধরা তোমাকে নিয়েও কথা ওঠে। জানিনা কখনও আমরা সবার উপরে মানুষের মূল্যায়ন করতে পারবো কি…? নাকি একটা জীবন নারী হয়েই কাটিয়ে দেবো?মূর্খরাও হয়তো আরও মূর্খই রয়ে যাবে।

নর্থসাউথের আঙ্গিনায় মুখর ছিলে।ছিলে আড্ডায় সরব।চিরচেনা শহরটায়ও এখন আর পা রাখবেনা। চলে যেতে হয়।চলে যাবো আমরাও।কিন্তু তোমার যাওয়াটা  আমাদের বড়ো বেশী অপরাধী করে দিলো।আকাশের হাতছনি তোমাকে উড়তে শিখিয়েছিলো।পেছন ফিরে আর তাকাওনি তুমি। আর মাত্র ৫০ ঘন্টা ফ্লায়িংয়ের অভিজ্ঞতা যোগ হলেই তুমি হয়ে যেতে পূর্নাঙ্গ পাইলট। স্বপ্নটা জেগে দেখলেও ঘুমিয়েই গেলে অবশেষে।

অসুস্থ্য মা-ই ছিলো তোমার সবচেয়ে কাছের বন্ধু।শুনেছি মাকে ঘুম না পাড়িয়ে তুমি বিছানায় যেতে না।যে তুমি মাকে ঘুম পাড়াতে সে তুমিই তার ঘুম কেড়ে নিয়ে চলে গেলে।মার কথা ভেবেই তোমার ঘর থেকে সরাতে হচ্ছে তোমার ছবি, আরও কত কি।তাতেও কি মার কিছু যাবে আসবে???

বন্ধুর সঙ্গে

হয়তো দূরে বসে আমার কথাগুলো শুনে হাসছো…। ভাবছো আমিতো এখন কিছুতে নেই,কিচ্ছুতে নেই।

জানি এখন তোমার পাশজুড়ে নক্ষত্রের মতো জড়িয়ে আছে তোমার সঙ্গে চলে যাওয়া পাইলট আবিদ হোসেন আর আমাদের অনেক ভাই-বোন এবং ছোট্ট দুটি অসহায় শিশু।তোমাদের গন্তব্য তো এক ছিলো না।কেউ গেলো বেড়াতে, কেউ হানিমুন করতে কেউ বা ডাক্তার হয়ে ছুটি শেষে ফিরছিলো স্বজনদের কাছে।অথচ তোমদের সবার গন্তব্য এক হয়ে গেলো…।পেছনে পড়ে রইলো বুকখালি হওয়া পরিবার।তোমরা কি দেখতে পাচ্ছো কতটা পাথর বুকে চেপে বসে আছে তারা…?

কার অবহেলায়,কার অসচেতনতায় এতগুলো পরিবার এতটা কষ্ট বয়ে বেড়াবে চিরটাকাল…?তবুও কি সাজা পাবে সেই আততায়ী বা আততায়ীরা??? আমরা শুধু আশা করতে পারি।আর এভাবে একটার পর একটা আশা নিয়েই আমরা নতুন করে পথ চলছি।আমাদের ক্ষমা করে দিও পৃথুলা।ক্ষমা করে দিতে বলো তোমার সঙ্গী সেই নক্ষত্রদেরও…।

ছবি: পৃথুলার ফেইসবুক থেকে