ঘটনাবহুল সেমিফাইনালে যা ঘটলো

আহসান শামীম

ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে ঘটনাবহুল এক সেমিফাইনাল। লঙ্কানদের বিপক্ষে তামিমের অর্ধশত আর মাহমুদুল্লাহর ১৮ বলে ৪৩ রানের অবিস্মরনীয় ইনিংসে ১ বল হাতে রেখেই জয় পেয়েছে  টাইগাররা। ম্যাচের শেষ ওভারে ফিজ আর মিরাজের রান আউট দুটোরই প্রয়োজন ছিল দুর্দান্ত ফর্মে থাকা মাহমুদুল্লাহর জন্য।আউট দুটো না হলে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের স্ট্রাইকিং পজিশনে যাওয়াটা দুষ্কর হয়ে পরতো। শেষ ওভারের তখন চার বল বাকী। পরপর দুই ওয়াইড বলে লেগ আম্পায়ার প্রথমে নো বলের সিদ্ধান্ত দিলেও পর মুহুর্তে তিনি সেখান থেকে সরে আসেন। এখান থেকেই উত্তেজনার শুরু।মাঠের উত্তেজনা ছড়িয়ে পরে দুই দলের খেলোয়াড়দের মাঝে। এক পরযায়ে টাইগার দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান মাহামুদুল্লাহ আর রুবেলকে মাঠ ত্যাগ করতে বারবার নির্দেশ দিলেও মাথা ঠান্ডা রেখে মাহামুদুল্লাহ রিয়াদ মাঠ ত্যাগ না করে আম্পায়ারের সঙ্গে কথা বলেন।উত্তেজিত হয়ে ওঠেন দুই দলের খেলোয়াড়রা। শেষ পর্যন্ত পরিস্থিতি শান্ত হলে রুবেলকে নিয়ে ম্যাচের শেষ ওভারের তৃতীয় বলে ২, চতুর্থ বলে ৪ আর পঞ্চম বলে ৬ রান করে ওভারের ১ বল বাকী থাকতেই লঙ্কানদের বিপক্ষে অবিস্মরনীয় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ দল।

টাইগাদের এমন জয়ের পর টুইটারে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের বিশেষ করে মাহামুদুল্লাহর প্রশংসায়  বিশ্ব ক্রিকেটের রথী, মহারথীদের টুইট বার্তার হিড়িক পরে যায়। টুইট করেছেন বলিউড বাদশাহ অমিতাভ বাচ্চনও। তিনি লিখেছেন, ‘ত্রিদেশীয় সিরিজে বাংলাদেশ আর শ্রীলংকার মাঝে এক অসাধারন ম্যাচ দেখলাম।অবিশ্বাস্য জয় বাঙ্গালীদের।শেষ দিকে এত আবেগ, তর্ক-বির্তকের পরও দারুন খেলেছ তোমরা এবং জিতেছও। তোমাদের জানাই অভিনন্দন।’

জয়ের আনন্দে টাইগার ক্রিকেটারদের নাগীন নৃত্যে উত্তেজিত হন লঙ্কান খেলোয়াড়রা। এসময় টাইগার ক্রিকেটার সোহানের সাথে বাকবিতান্ড শুরু করেন লঙ্কান ক্রিকেটাররা। উত্তেজনা প্রশমনের জন্য মাঠে ছুটে আসেন টাইগারদের ভারপ্রাপ্ত হেড কোচ কর্টিন ওয়ালশ। হেড কোচ আর  মাহমুদুল্লাহর হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়।অথচ গোটা খেলায় গ্যালারীতে শ্রীলঙ্কার সমর্থকরা নাগিন নৃত্য প্রদর্শন করে গেছেন।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে টাইগার অধিনায়ক সাকিব আল হাসান বলেন, টি-টুয়েন্টি ম্যাচে এর চেয়ে বেশি উত্তেজনা ও আবেগ তিনি আশা করতে পারেননি। শেষ দিকে দল স্নায়ুচাপ ধরে রেখেছিল বলেও মন্তব্য করেছেন সাকিব। মাঠে যাই ঘটুক না কেন মাঠের বাইরে তারা সবাই বন্ধু। এবিষয় ভবিষ্যতে তিনি আরও সতর্ক থাকবেন।

শ্রীলঙ্কায় প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের ড্রেসিং রুমের দরজাও নাকি ভাঙ্গাভাঙ্গি হয়েছে। ম্যাচ শেষে বাংলাদেশ দলের ড্রেসিং রুমের দরজা ভাঙ্গা পাওয়া গেছে। চারপাশে কাঁচের টুকরা ছড়িয়ে ছিটিয়েছ থাকতে দেখা গেছে।অভিযোগ উঠেছে, বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররাই নাকি উম্মাদ উল্লাসে এমন কান্ড করেছে।এমন অভিযোগের কোন সত্যতা এখনো পাওয়া যায় নি।

প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে ড্রেসিং রুমের কাঁচের দরজা ভাঙ্গার বিষয়টা খতিয়ে দেখতে সিসিটিভি ফুটেজের সাহায্য নেবে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচের ম্যাচ রেফারি ক্রিস ব্রড। ব্রড স্থানীয় অফিসিয়াল কর্তাদের কাছে সিসিটিভি ফুটেজ চেয়েছেন। প্রেমাদাসার গ্রাউন্ডস স্টাফরা আজ শনিবারের মধ্যে ম্যাচ রেফারি ও সাবেক ইংলিশ ক্রিকেটার ক্রিস ব্রডের কাছে রিপোর্ট করার কথা। বিকেলের মধ্যেই গ্রাউন্ড স্টাফদের লিখিত রিপোর্ট পাওয়া যাবে। বিতর্কে ভরা এই ম্যাচের বিভিন্ন ঘটনার ফুটেজ দেখবেন কর্তব্যরত দুই শ্রীলঙ্কান আম্পায়ার রুচির পল্লীগুরুজ ও রেভেন্দ্র উইমালাসিরি।

আগামীকাল রোববার কলোম্বের প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে ভারতের বিপক্ষে ফাইনাল খেলবে বাংলাদেশ দল।

 

ছবিঃ ইএসপিএস