ফাইনালে জয়ের হাতছানি আজ

আহসান শামীম

লঙ্কানদের বিপক্ষে জয়ের পর বাংলাদেশ দলকে অভিনন্দন জানালেও সাকিবের আচরণকে দুঃখজনক বলে অভিহিত করেছেন শ্রীলংকার ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি। এরকম ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করেছেন বিসিবি’র সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও। কিন্তু বিসিবি সভাপতির দুঃখ প্রকাশকে মেনে নিতে পারছেন না টাইগার ভক্তরা। আম্পায়ারের শাস্তি দাবি করা উচিত ছিল বিসিবি সভাপতির এমনটাই মনে করেন তারা। অনলাইন পত্রিকা বাংলা ট্রিউবিউন তাদের সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে,  শ্রীলংকার ক্রিকেট বোর্ড আইসিসির কাছে অন্তত সাকিবকে ভারতের বিপক্ষে ফাইনাল ম্যাচের দিন সাসপেন্ড করা অনুরোধ জানিয়ে চিঠি পাঠিয়েছেন। শ্রীলংকা গনমাধ্যমের খবর ম্যাচ আম্পায়ার ড্রেসিং রুমের গ্লাস ভাঙ্গচুরের ঘটনায় বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা জড়িত থাকার প্রমান মেলেনি বলে যে রিপোর্ট প্রকাশ করেছে তার বিপক্ষে শ্রীলংকা সরকার তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। তারাই এখন ঘটনার তদন্ত করবেন।

লঙ্কান সাবেক অধিনায়ক সনাৎ জয়সুরিয়া বাংলাদেশের এই আচরণকে ‘থার্ড ক্লাস আচরণ’ হিসেবে অভিহিত করে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তিনি এক টুইট বার্তায় ভাঙ্গা গ্লাসের ছবি পোস্ট করে ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে উত্তপ্ত ম্যাচের পর উৎসব করতে গিয়ে বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা ড্রেসিংরুমের গ্লাস ভেঙ্গেছে। তৃতীয় শ্রেণির আচরণ।’ অবশ্য টুইটারে তাঁর এই বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা শুরু হলে কিছুক্ষণ পরেই নিজের টুইট বার্তাটি সরিয়ে ফেলেন।

নিদাহাস ট্রফির গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচ নিয়ে শ্রীলঙ্কার ইংরেজী দ্য আইল্যান্ড পত্রিকা পরাজয়ের জন্য স্বাগতিকদের ভুল হিসাবকে দায়ী করেছে। সেই সঙ্গে মাহমুদল্লার বীরত্বপূর্ণ ইনিংসকে দিয়েছে জয় ছিনিয়ে নেয়ার কৃতিত্ব। ম্যচের শেষ ওভারে সাকিব আল হাসানের প্রতিবাদী আচরণকে পত্রিকাটি বলেছে ’উদ্বেগজনক’। রিপোর্টের শেষে বলা হয়েছে, মাহমুদুল্লার ম্যাচ জেতানো ছক্কাটা ছিলো লঙ্কান দর্শকদের জন্য বড় আঘাত। স্টেডিয়ামে নেমে আসে পিনপতন নিরবতা, ৩৫ হাজার দর্শক বাড়ি ফিরেছেন হতাশা নিয়ে। আর ২৫ মিলিয়ন শ্রীলঙ্কান রাতে ঘুমাতে গেছে এই ম্যাচকে একটি দুঃস্বপ্ন ভেবে।

এদিকে নির্ভার থাকাই টাইগারদের ভারতের বিপক্ষে আজকের ম্যাচের মূলমন্ত্র, এমনটাই জানলেন টাইগার অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। শনিবার সদ্য ইনজুরি থেকে ফেরা সাকিব নেটে ঘাম ঝরিয়েছেন বেশ খানিকক্ষণ। এরপর সংবাদ সম্মেলনে এসে তিনি বলেন,রোববার ফাইনালে তার দল নির্ভার হয়েই মাঠে নামতে চায়।

অধিনায়ক সাকিব বলেন, “কয়েকটা ফাইনাল খেলেছি। আমাদের জন্য এটা আরেকটা সুযোগ। ভারত যদিও খুব ভালো দল। যেভাবে খেলেছে, তাতে ওরাই ফেভারিট। ভালো ক্রিকেট খেলার লক্ষ্য থাকবে আমাদের। সবাই মুখিয়ে আছে ভালো করতে।”

অন্যদিকে, রবিবার নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে  টাইগারদের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে দলের ফিল্ডিং নিয়ে চিন্তিত ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট। ম্যাচ-পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে দীনেশ কার্তিক জানান, “যখন ঘরের দল খেলছে না তখন ক্রাউড কম হবে সাথে প্রেরণাও কম থাকবে। দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষে আমরা বাজে ফিল্ডিং করেছি। আমরা পাঁচটার মতো ক্যাচ মিস করেছি। আমরা ফিল্ডিংয়ে স্বাভাবিক ভারতীয় দলের মতো খেলতে পারিনি।” তিনি আরও বলেন, “আমাদের ফিল্ডিং কোচ আমাদের সোজাসাপ্টা বলেছেন এবং নির্দেশনা দিয়েছেন যে ক্রাউড হোক অথবা না হোক, আউটফিল্ড ভালো থাকুক অথবা না থাকুক আমাদের ভালো করতে হবে। আমরা নির্দিষ্ট একটা বেঞ্চমার্ক তৈরি করেছি আমাদের জন্য। মাঠে পা দেয়ার পর প্রতিটা ধাপে আমরা সেই বেঞ্চমার্ককে লক্ষ্য করে আগাবো।কার্তিকের মতে, “যদি এখানে ডিউ না থাকে তাহলেও ভালো উপভোগ্য একটা খেলা হবে। যারা ভালো বোলিং করবে তাদেরই ফাইনালে জেতার সম্ভাবনা বেশি।”

সম্প্রতিক বাংলাদেশের উত্থানে অভিভুত দীনেশ কার্তিক বলেন, “বিশেষ করে উপমহাদেশের মাটিতে দারুণ ভয়ঙ্কর বাংলাদেশ দল। তাদের ক্ষিপ্রতা চোখে পরার মতো। শুরু থেকেই তারা দারুণ পরিশ্রমী। তারা টেস্ট স্ট্যাটাস পেয়েছে, বেশিদিন হয়নি।অবশ্য তাদের দেখলে সেটা মনেই হয়না। কেননা তিন ফরম্যাটের ক্রিকেটেই তারা মনোযোগ দিয়েছে, সফলতার মুখও দেখছে।”

কলম্বোর প্রেমাদাস স্টেডিয়ামে আজ বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭:৩০ মিনিটে ফাইনাল ম্যাচ শুরু হওয়ার কথা। শ্রীলংকার ৭০ তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে ভারত, বাংলাদেশ আর শ্রীলংকা তিন দল নিয়ে নিদাহাস কাপ ট্রফির আয়োজন করেছে শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ড।

ছবিঃ গুগল