ঋত্বিক দালাল ছিলেন-সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়

প্রয়াত কিংবদন্তী চলচ্চিত্র পরিচালক ঋত্বিক ঘটক সম্পর্কে চমকে ওঠার মতো মন্তব্য করলেন পশ্চিম বাংলার আরেক প্রখ্যাত অভিনয় শিল্পী সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। আর তাঁর এই মন্তব্য নিয়ে রীতিমত সমালোচনার ঝড় উঠেছে। সব মহলেই একই মন্তব্য, এটা কী বললেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়!

সম্প্রতি কলকাতার একটি বাংলা দৈনিকের ক্রোড়পত্রে ধারাবাহিক ভাবে প্রকাশিত আত্মজীবনীতে ঋত্বিককে নিয়ে মুখ খুলেছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। সেই লেখায় ঋত্বিক সম্পর্কে একাধিকবার ‘দালাল’ শব্দটি ব্যবহার করতে কুণ্ঠা বোধ করেননি এই সম্মানিত অভিনয় শিল্পী। নিজের লেখায় তিনি ঋত্বিক ঘটককে ‘প্রোডিউসারদের দালাল’ বলে আখ্যা দিয়েছেন।

মাত্র সাত দিন আগে পৃথিবী থেকে বিদায় নিয়েছেন কিংবদন্তি এই চলচ্চিত্র পরিচালকের সহধর্মিনী সুরমা ঘটক। তাঁর মৃত্যুর পর এ ধরণের মন্তব্যে বইছে বিতর্ক আর সমালোচনার ঝড়ো হাওয়া।

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় তাঁর লেখায় উল্লেখ করেছেন ঋত্বিকের সঙ্গে তাঁর রীতিমত হাতাহাতির ঘটনাও ঘটেছিলো। ‘ওর রাগ ছিল স্ট্রাইকের সময় সংরক্ষণ কমিটি থেকে এতগুলো ডিরেক্টরের একসঙ্গে বেরিয়ে যাওয়া নিয়ে।… ঋত্বিক এমনিতে যতই স্বীকৃত বামপন্থী হোক, সেই সময় প্রোডিউসারদের দালাল হয়ে গিয়েছিলো।’ সৌমিত্র এও জানিয়েছেন, মদ খেয়ে সত্যজিৎ রায়ের নিন্দা করায় এবং তাঁকে গালাগাল করায় একবার তিনি ঋত্বিককে মেরেছিলেন। সেই সময় মৃণাল সেন না ঠেকালে ঋত্বিককে তিনি আরও মারতেন! আর সবচাইতে চমকে ওঠার মতো তথ্য হলো সেই লেখায় সৌমিত্র লিখেছেন সেদিনের ঘটনাটা নিয়ে তিনি এতদিন পরেও মোটেই অনুতপ্ত নন।

ওই লেখায় সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় মন্তব্য করেছেন, ‘ঋত্বিককে নিয়ে সত্যজিতের প্রশংসটা ছিলো বাড়াবাড়ি।

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের মতো মানুষের কাছ থেকে এ ধরণের মন্তব্য আশায় বিষ্মিত ও ক্ষুব্ধ হয়েছেন পশ্চিম বাংলার বুদ্ধিজীবী মহল। তারা সরাসরি এ ব্যাপারে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের তীব্র সমালোচনা করে বিবৃতিও দিয়েছেন।

বিনো্দন ডেস্ক

তথ্যসূত্রঃ খবর, কলকাতা

ছবিঃ গুগল