ক্রোয়েশিয়ার ঘরে যাবে বিশ্বকাপ?

আহসান শামীমঃ আর মাত্র একটি ম্যাচ, একটি জয় এবং পরাজয়। তারপরেই বাজবে শেষ বাঁশি। চলছে ক্ষন গননা। ১৫ জুলাই বাংলাদেশ সময় রাত ৯ টায় রাশিয়ায় বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচের বাঁশি বাজবে।। ১৯৯৮ সালের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স না প্রথমবারের মত বিশ্বকাপ খেলতে আসা ক্রোয়েশিয়া, কার হাতে উঠবে এবারে বিশ্বকাপ ? আলোচনা আর তর্ক- বিতর্কের এই ঝড় এখন ফুটবল বিশ্বের সবখানে।

১৯৫০ সালের পর বিশ্বকাপ ইতিহাসে একমাত্র দেশ ক্রোয়েশিয়া, যারা নক-আউট পর্বের তিন ম্যাচই পিছিয়ে থেকেও জয়টা নিজেদের করে নিতে সক্ষম হয়েছে।দুই যুগ আগের ক্রোয়েশিয়ার দিকে তাকালে দেখা যাবে মাত্র কয়েক বছরের তাদের ফুটবল বাঁক নিয়েছে ৩৬০ ডিগ্রি। ১৯৯৪ সালে এই ফিফা র‍্যাংকিংয়ের তালিকায় বাংলাদেশেরও নিচে অবস্থান ছিলো ক্রোয়েশিয়ার। ১৬৭ দেশের মধ্যে সে বছর বাংলাদেশের র‍্যাংকিং ছিলো ১১৯। ৬ ধাপ পিছিয়ে ক্রোয়েশিয়া ১২৫। তার আগের বছর ১৯৯৩ বাংলাদেশের র‍্যাংকিং ছিলো ১১৬ আর ক্রোয়েশিয়ার ছিলো ১২২।

কাকতালীয় ভাবে ফাইনালে পৌঁছে যাওয়া এই দুটি দলই আর্জেন্টিনাকে হারিয়েছে এবারে বিশ্বকাপে। ফ্রান্সের কাছে হেরে সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নেয় বেলজিয়াম।তৃতীয় আর চতুর্থ স্থান নির্ধারনী ম্যাচে বেলজিয়াম মুখোমুখি হবে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে।

২২ হাজার বর্গ কিলোমিটারের দেশ ক্রোশিয়া,জনগোষ্টি ৪.১ মিলিয়ন। ফ্রান্সের জনগোষ্ঠী আর আয়াতনের তুলনায়, খুবই ছোট একটা দেশ।ফ্রান্স বা ক্রোশিয়া বিশ্বকাপ জয় করতে পারলেই প্রাইজ মানি পাবে ৩৮ মিলিয়ন ডলার বাংলাদেশের মুদ্রায়,তিন কোটি ৮০ লাখ ডলার। আর রানার আপ হলে পাবে ২৮ মিলিয়ন ডলার যা বাংলাদেশী মুদ্রায় দুই কোটি ৮০ লাখ ডলার।

বিশ্বকাপ ইতিহাসের পাতা খুললেই চোখে পড়ে, প্রতি ২০ বছর পরই বিশ্বকাপ উপহার দিয়েছে নতুন কোন বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন।১৯৯৮ সালে ফ্রান্সের বিশ্বকাপ জয় ছিলো সেই ইতিহাসেরই প্রতিফলন।ঠিক ২০ বছর পর রাশিয়া বিশ্বকাপের ফাইনালে নতুন দল ক্রোশিয়া।বিশ্বকাপের এই ইতিহাস অক্ষুন্ন থাকলে মোটাদাগে ধরে নেওয়া যায় রাশিয়া বিশ্বকাপটা হয়তো ক্রোয়েশিয়ার ঘরেই যাবে।

ছবিঃ ফুটবল টুইট