ভালো থাকুক ভালোবাসা

সজীব খন্দকার

ফেইসবুক এর গরম আড্ডা চালাতে পারেন প্রাণের বাংলার পাতায়। আমারা তো চাই আপনারা সকাল সন্ধ্যা তুমুল তর্কে ভরিয়ে তুলুন আমাদের ফেইসবুক বিভাগ । আমারা এই বিভাগে ফেইসবুক এ প্রকাশিত বিভিন্ন আলোচিত পোস্ট শেয়ার করবো । আপানারাও সরাসরি লিখতে পারেন এই বিভাগে। প্রকাশ করতে পারেন আপনাদের তীব্র প্রতিক্রিয়া।

আমার দেশান্তরি জীবনের আজ ২ বছর আট মাস, ৫ দিন,যদিও আমি এই সময়ে নিজেকে নিজে নতুন ভাবে আবিস্কার করতে পেরেছি।

দেশের বাহিরে না আসলে এটা হয়তো হতো না,ভাবতে অবাগ লাগে এই ডিজিটাল যুগে আমি মনে হয় বড্ড এনালগে পড়ে আছি, এটা বাংলাদেশ সরকার জানলে হয়তো বা আমায় দেশে ঢুকতে নাও দিতে পারে,কেন বলছি এই ২ বছরে মাএ ৫ বার আমি আমার পরিবারকে ইমুতে ভিডিও কল দিয়ে কথা বলেছি।

আমি আমার মা, আমার এ্যানজেল আমার ভাই বোন আর আমার পোষা পাখি মিঠুকে দেখেছি,আর যেদিনই তাদের ভিডিও কলে দেখেসি, সেদিনই আমার নাওয়া – খাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে,আমার মনে হয় আমার সাহস একটু কমই,নিজের এই খারাপ লাগা কাটিয়ে উঠতে পারিনা।

আমার প্রিয় মুখগুলো দেখবো অথচ তাদের জড়িয়ে ধরতে পারবো না, মায়ের কপালে চুমু দিতে পারবোনা,এ্যানজেল এর গাল ধরে টানতে না পারা এর চেয়ে আমার মনে হয় বড় শাস্তি হতে পারেনা,আর সেই খারাপ লাগাও।তাই ভালোবাসার অভিমান থেকে ইমুতে ভিডিও কল দেওয়া হয়না।

দেশের বাহিরে আসার পর আমার পরিবার ও অনেক কাছের মানুষ আমাকে ঈদ বা কোরবানিতে পাঞ্জাবী বা যেকোনো উপহার পাঠানোর জন্য অনেকবার বলছে কিন্তু আমি প্রত্যেক বারই বারণ করে দিয়েছি।

তবে গত বছর মাকে বলছিলাম আমায় একটা চিঠি লিখবা একটা চিঠি মা,শুধু মা ই আমায় চিঠি লিখে পাঠায়নি আমার পরিবারের মোট ৮ টি চিঠি হাতে পেয়েছি,একজনের মাধ্যমে পাঠানো চিঠি আমি যখন হাতে পাই তার অনুভূতি লিখে বলতে পারবোনা,

আমার মায়ের চিঠি পেয়ে অনেকক্ষন কান্না করেছি,চিঠিতে মায়ের গন্ধ,মায়ের স্পর্শ খোজার চেষ্টা করেছি,আমার ছোট্ট মা এ্যানজেল ওর বয়স প্রায় ৫ বছর ও অনেক কিছু রং করে চিঠি লিখছে আমার একটু কষ্ট হয়নি ওর রং এর ভাষা বুঝতে।

আসলে আমার রোজকার মায়ের ও বাসার সবার পাঠানো চিঠি পড়া একটা নিয়মিত রুটিনমাফিক কাজ,মায়ের চিঠির উওর লিখেছি পাঠাবো যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব,মায়ের পাঠানো প্রথম চিঠি আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ উপহার।বড্ড মনে পরে ভালোবাসাগুলোকে। ভালো থাকুক ভালোবাসা।

ছবি: লেখক