অবিশ্বাস্য এক জয় এনে দিলেন মুস্তাফিজ

আহসান শামীমঃ এশিয়া কাপে টিকে থাকার লড়াইয়ে আফগানদের বধ করলো বাংলাদেশ। শ্বাসরূদ্ধকর এক ম্যাচ। এক ওভারে ৮ রান করার মতো প্রায় সহজ কাজটা আফগানদের জন্য হিমালায় টপকানোর মতো দুরুহ করে দিলন কাটার মাস্টার মুস্তাফিজ।তার শেষ বলটাই ছিলো যেন তুরুপের তাস। আর তাতেই বাজিমাৎ। ঘুরে দাঁড়ালো বাংলাদেশ।

অবিশ্বাস্য এই পরাজয়ের পর আফগান অধিনায়ক আসগর আফগান বললেন, ‘বাংলাদেশকে অভিনন্দন। খেলাটা আমাদের জন্য  বিষাদের ছিল। ৬ বলে ৮ রান কঠিন ছিল না, কারণ রশিদ, নবী, শেনওয়ারি এটা করতে পারত। আমি মুস্তাফিজকে কৃতিত্ব দেবো, সে তাঁর বোলিংয়ের বৈচিত্র দেখিয়েছে।আর আমরা হেরেছি ওর কাছেই।

‘মুস্তাফিজ বেশ ক্লান্ত ছিল, পায়ের পেশিতে টান পরেছিল তাঁর। আমরা চেয়েছিলাম তাঁকে ১০ ওভার বোলিং করাতে,  পারেনি। আপনি ওর বোলিং দেখলে বুঝবেন, সে শুধু কাটার করছিল। পেশির কারণে ইয়র্কার দিতে পারছিলো না।এখানে অনেক গরম। এইরকম গরমে টানা ৪ দিনে তিন ম্যাচ খেলা সহজ ছিলো না। দিন শেষে জয় এসেছে, এখন সব কষ্ট মুছে যাবে।’ ম্যাচ শেষে এমন প্রতিক্রিয়া জানালেন আফগানদের বিপক্ষে লড়াইয়ে টাইগারদের জয়ী অধিনায়ক মাশরাফি।

পরিসংখ্যানও বেশ পরিষ্কার। সদ্য সমাপ্ত ম্যাচের আগে ৪১ থেকে ৫০ ওভারের মধ্যে তিনি বল করেছেন ২১ ইনিংসে, ১৪.৬ গড়ে নিয়েছেন ১৯ উইকেট। সবচেয়ে বেশি নজরকাড়া তার ইকোনমি রেট, মাত্র ৬.২। এই দুর্দান্ত জয়ের পর ম্যান অফ দ্যা ম্যাচের পুরস্কার পান মাহমুদউল্লা রিয়াদ।যদিও রিয়াদ জয়ের কৃতিত্ব দেন মোস্তাফিজকেই। তাঁর দুর্দান্ত শেষ ওভারের জন্য।

টুর্নামেন্টে টিকে থাকতে জয় ছাড়া ভিন্ন কোনো পথ খোলা ছিলো না বাংলাদেশে বা আফগানদের  সামনে। এমন সমীকরনের ম্যাচে শেষ ওভারে আফগানদের প্রয়োজন ছিল ৮ রান।  আফগানদের হাতে ছিল ৪ উইকেট।বোলিংয়ে আসলেন মোস্তাফিজ। প্রথম বল থেকে রশিদ নিল ২ রান। সমীকরণ আরেকটু সহজ হলো তাদের জন্য।শেষ ৫ বলে প্রয়োজন ছিল ৬ রান। তখনই দেখালেন মোস্তাফিজের জাদু। দারুণ এক স্লোয়ারে রশিদ খানকে ফিরিয়ে দিলেন বাঁহাতি এই পেসার।পরের তিন বল থেকে আফগানরা নিতে পারল কেবল ২ রান।শেষ বলে আফগানদের জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ৪ রান কিন্তু সে বলটিও ডট দিয়ে বাংলাদেশকে ৩ রানের অবিশ্বাস্য জয় এনে দিলেন মোস্তাফিজ। দুর্দান্ত বল করে বাংলাদেশকে ৩ রানের জয় এনে দেন মোস্তাফিজ। যা মুগ্ধ করেছ ক্রিকেট বিশ্বকে। ম্যাচ শেষে এই কাটার মাস্টারকে প্রসংশায় ভাসে সোশ্যাল মিডিয়া। টুটইটারে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বর্তমান ও সাবেক ক্রিকেটার মুস্তাফিজের প্রশংসা করেন।

এমন একটা জয়ের দিনে, রেকর্ডের পাতায় নাম লেখালেন অধিনায়ক মাশরাফি।মুস্তাফিজের বন্দনায় সেই রেকর্ডের গল্পটা একেবারেই চাপা পরে গেছে।অধিনায়ক মাশরাফি এদিন ১০ ওভারে খরচ করেছেন ৬২ রানে।যদিও সময় মত তুলে নিয়েছেন ২টা মূল্যবান উইকেট। সেই সাথেই তিনি স্পর্শ করলেন নতুন মাইলফলক। বাংলাদেশের প্রথম বোলার হিসেবে মাশরাফি ওয়ানডেতে ২৫তম ক্রিকেটার হিসেবে ২৫০ উইকেটের মালিক হলেন ক্যারিয়ারের ১৯৪তম ওয়ানডেতে এসে।  ৪.৮০ ইকোনমি রেটের সঙ্গে সর্বোচ্চ ২৬ রানে ৬ উইকেট মাশরাফির ক্যারিয়ার সেরা। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শুধু পেসারদের মধ্যে আড়াইশর মাইলফলক ছুঁতে পেরেছেন মাত্র ১৪ বোলার। বর্তমানে ক্রিকেট খেলছেন এমন পেসারদের মধ্যে আড়াইশ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করতে পেরেছেন শ্রীলঙ্কার লাসিথ মালিঙ্গা। ২০৪ ম্যাচে ৩০১ উইকেট এই লঙ্কানের।

দিনের অপর ম্যাচে ভারতের কাছে পাকিস্তান ৯ উইকেটের বিশাল ব্যাবধানে পরাজিত হয়।এতে করে ভারত চলমান এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠে গেছে।নিয়ম রক্ষার ম্যাচে ২৫ সেপ্টেম্বর আফগানদের বিপক্ষে ভারত মাঠে নামবে।একই দিনে মহাগুরুত্বপূর্ন ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশ মুখোমুখি হবে।ম্যাচটা ইতিমধ্যেই পরিগনিত হয়েছে অঘোষিত সেমিফাইনালে।এর আগে পাকিস্তান শেষ বলে আফগানদের বিপক্ষে সুপার ফোরে জয় তুলে নেওয়ায়, চলমান বিশ্বকাপে আফগানদের স্বপ্ন শেষ। বাংলাদেশ, পাকিস্তানের ম্যাচের বিজযী দলই ২৮ সেপ্টেম্বর ভারতের বিপক্ষে ফাইনাল খেলবে।এমন গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে শান্তর জায়গায় সৌম্য সরকারকে ওপেনিং করতে দেখা যেতে পারে।

ছবিঃ ইএসপিএন, গুগল